রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১
Logo
রূপসায় প্রধান শিক্ষকের উপর হামলা : ফুসে উঠেছে শিক্ষক সমাজ

রূপসায় প্রধান শিক্ষকের উপর হামলা : ফুসে উঠেছে শিক্ষক সমাজ

রূপসা উপজেলার জে,বি,এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো: আব্দুল্লাহেল বাকীর অফিস চলাকালীন সময় বিদ্যালয় এলাকার সন্ত্রাসী কর্তৃক হামলার ঘটনায় ফুসে উঠেছে শিক্ষক সমাজ।

 

ঘটনার নায়ক একই উপজেলার বাধার গ্রামের আলাউদ্দিন মল্লিকের পুত্র মঞ্জু মল্লিক কে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানিয়ে গতকাল ৭ ডিসেম্বর সকালে জেবিএম মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে শিক্ষকদের এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

 

সমাবেশে প্রধান শিক্ষক পরিষদের কেন্দ্রিয় নেতা রবিউল ইসলাম পলাশের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন প্রধান শিক্ষক আহসান উল্লাহ, রেহেনারা খাতুন, সরোজ কুমার হালদার, মনিরুজ্জামান, মুনজুর আলী শেখ, কৃষ্ণ পদ রায়, হায়দার আলী, মধু মঙ্গল মল্লিক, চাদ সুলতানা, যশোমন্ত ধর, মুনসুর আলী শেখ, আজিজা সুলতানা, দ্বিপ্তীশ্বর বিশ্বাস, মাদ্রাসা সুপার জাহাঙ্গীর আলম, শফিউদ্দিন নেছারী, প্রধান শিক্ষক সাইফুল্লাহ কবীর প্রমুখ।

 

প্রধান শিক্ষক নেতৃবৃন্দ এরপর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবরে লিখিত আবেদন দায়ের করেন এবং গত ৬ ডিসেম্বর রূপসা থানায় জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে প্রধান শিক্ষক আব্দুল্লাহেল বাকী রূপসা থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন যার নং-২২২।

 

অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, গত ৫ ডিসেম্বর সকাল ১১ টায় প্রধান শিক্ষক মো: আব্দুল্লাহেল বাকী তার অফিস কক্ষে কর্মরত ছিলেন। এ সময় বাধাল গ্রামের আলাউদ্দিন মল্লিকের পুত্র মঞ্জু মল্লিক বিনা অনুমতিতে প্রধান শিক্ষকের কক্ষে প্রবেশ করে এবং তার ব্যক্তিগত কিন্ডার গার্টেন বিদ্যালয়ের কাজে ব্যবহারের জন্য কক্ষ বরাদ্দ দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

 

এতে প্রধান শিক্ষক রাজী না হওয়ায় মঞ্জু মল্লিক প্রধান শিক্ষককে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এবং তার পায়ের জুতা খুলে তাকে একাধিকবার আঘাত করে। এ সময় প্রধান শিক্ষক সহ বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

 

ঘটনার আকস্মিকতায় রূপসা উপজেলার সকল প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-কর্মচারীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক পরিষদের কেন্দ্রিয় নেতা রবিউল ইসলাম পলাশ জানান, অতি অল্প সময়ের মধ্যে একাধিক অপকর্মের হোতা, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী, শিক্ষক নেতার উপর হামলার নায়ক মঞ্জু মল্লিককে গ্রেফতার করা না হলে শিক্ষক কর্মচারীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলবে।

 

এ ব্যাপারে রূপসা থানার অফিসার ইনচার্জ মোল্লা জাকির হোসেন জানান, প্রধান শিক্ষকের জীবন নাশের হুমকির ঘটনায় দায়েরকৃত সাধারণ ডায়রীর তদন্ত প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শুরু হয়েছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাসরিন আক্তার জানান, শিক্ষকদের অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে।

 

অতিস্বত্ত্বর তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এ দিকে শিক্ষকের উপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন খুলনা-৪ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুস সালাম মূর্শেদী এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো: কামাল উদ্দীন বাদশা।

সংযুক্ত থাকুন