শুক্রবার, ২৫ জুন ২০২১
Logo
যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভায় ভোট গ্রহণ হতে পারে ১১ এপ্রিল

যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভায় ভোট গ্রহণ হতে পারে ১১ এপ্রিল

যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভায় আগামী ১১ এপ্রিল নির্বাচন হতে পারে বলে সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে ইসি সূত্র। এ লক্ষে আজ বুধবার তফসিল ঘোষণা হতে পারে বলেও জানিয়েছে সূত্রটি।


সূত্র জানায়, ৬ষ্ট ধাপে দেশের নয়টি পৌরসভায় নির্বাচন সম্পন্ন করার কথা আগেই জানিয়েছিলো নির্বাচন কমিশন। এছাড়া সম্প্রতি সিইসি যশোরের সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে আগামী ১১ এপ্রিল যশোর পৌরসভায় নির্বাচন হবে বলে জানিয়েছিলেন।

 

তবে ইসি সূত্র জানিয়েছে, আজ বুধবার নির্বাচন কমিশনের ৭৭-৩ম কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এদিন ৯ টি পৌরসভার সাথে যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভার নির্বাচনের বিষয়টিও আলোচ্যসূচিতে রাখা হয়েছে।


আজকের বৈঠকে যশোর ও নওয়াপাড়া পৌরসভাসহ মোট ১১ টি পৌরসভার তফসিল ঘোষণার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে ইসি সূত্র। ৭৬তম কমিশন বৈঠক শেষে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মোহাম্মদ হুমায়ুর কবীর খোন্দকার জানিয়েছিলেন, ২০ জেলার ৬৩টি উপজেলার ৩২৩টি ইউপি নির্বাচন ১১ এপ্রিল অনুষ্ঠিত হবে।


এসব ইউপির মধ্যে ৪১টিতে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ করা হবে। অন্যগুলোতে ব্যালট পেপারে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এ ক্ষেত্রে তফসিল ঘোষণা করা হবে মার্চের প্রথম সপ্তাহে। কেননা, ২ মার্চ চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। ভোটার তালিকা চূড়ান্ত করার পর তফসিল হবে। মঙ্গলবার চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হয়।


এদিকে ১১ এপ্রিল ষষ্ঠ ধাপের ৯টি পৌরসভার ভোটগ্রহণও অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা জানিয়েছিলো ইসি। পৌরসভাগুলো হলোÑঝালকাঠি, লাঙ্গলকোট, ভাঙ্গা, চকরিয়া, সোনাগাজী, কবিরহাট, মহেশখালী, সেতাবগঞ্জ ও দেবীগঞ্জ। এসব পৌরসভাতেও ইভিএমে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর সঙ্গে স্থগিত দুটি পৌরসভাও যুক্ত হচ্ছে।


একটি হচ্ছে যশোর সদর পৌরসভা, অন্যটি অভয়নগরের নোয়াপাড়া পৌরসভা। এবারও গতবারের মতো চেয়ারম্যান পদে দলীয় প্রতীকে ইউপির ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম পাপুলের শূন্য আসনে (লক্ষ্মীপুর-২) উপ-নির্বাচনের তফসিলও হতে পারে আজ বুধবার।

 

এ ক্ষেত্রে ভোট হতে পারে এপ্রিলের প্রথমার্ধে। ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পাপুলের আসনে ভোটের জন্য প্রস্তাবনা চেয়েছে কমিশন। এপ্রিলে প্রথমার্ধে ভোটের জন্য প্রস্তাবনা তৈরি করা হয়েছে। বুধবার কমিশন সভায় ভোটের তারিখ নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে। ৭৭-তম কমিশন সভার আলোচ্যসূচিতেও এ নির্বাচনের বিষয়টি রাখা হয়েছে।


এ ছাড়া ৩২৩ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন, ১১টি পৌরসভা নির্বাচনও বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে রাখা হয়েছে। কর্মকর্তারা বলছেন, স্থানীয় সরকারগুলোর নির্বাচনের তারিখ ১১ এপ্রিল, সেটা আগেই ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার পূর্ণাঙ্গ তফসিল ঘোষণা করা হবে। একই সময় পাপুলের আসনের উপ-নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সিদ্ধান্তও রয়েছে।


এ আসনেও ১১ এপ্রিল ভোট হতে পারে। কয়েকদিন আগে নির্বাচন কমিশনার কবিতা জানিয়েছিলেন, রোজার আগেই পাপুলের আসনে নির্বাচন করার পরিকল্পনা রয়েছে। গত ২৮ জানুয়ারি কুয়েতের ফৌজদারী আদালত পাপুলকে কারাদন্ডে দন্ডিত করায় তার লক্ষ্মীপুর-২ আসনটি ২২ ফেব্রুয়ারি শূন্য ঘোষণা করে সংসদ সচিবালয়। আসন শূন্য ঘোষণার গেজেট নির্বাচন কমিশনেও পাঠানো হয়েছে।


সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান প্রকাশিত আসন শূন্য ঘোষণার গেজেটে উল্লেখ করা হয়েছে, কুয়েতের ফৌজদারি আদালত কর্তৃক গত ২৮ জানুয়ারি ঘোষিত রায়ে নৈতিক স্বলনজনিত ফৌজদারি অপরাধে চার বছর সশ্রম কারাদন্ডে দন্ডিত হওয়ায় ২৭৫ লক্ষ্মীপুর-২ হইতে নির্বাচিত সংসদ-সদস্য জনাব মোহাম্মদ শহিদ ইসলাম গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদের বিধান অনুযায়ী সংসদ-সদস্য থাকিবার যোগ্য নহেন। সেই কারণে সংবিধানের ৬৭ (১) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রায় ঘোষণার তারিখ ২৮ জানুয়ারি হইতে তাহার আসন (২৭৫ লক্ষ্মীপুর-২) শূন্য হইয়াছে।


গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের কার্যপ্রণালী-বিধির ১৭৮ (৪) বিধি অনুযায়ী ২৭৫ লক্ষ্মীপুর-২ হইতে নির্বাচিত সংসদ-সদস্যের আসন শূন্য সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জারি করা হইল। শূন্য আসনে নির্বাচনের বিধান অনুযায়ী, ২৮ জানুয়ারি থেকে পরবর্তী নব্বই দিনের মধ্যে লক্ষ্মীপুর-২ আসনে ভোটগ্রহণ করতে হবে।


এ ক্ষেত্রে আগামী ২৮ এপ্রিল নব্বই দিন পূর্ণ হবে। এর আগেই আসনটিতে উপ-নির্বাচন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। পাপলুর বিরুদ্ধে কুয়েত সরকার মাবনপাচার ও অর্থপাচারের অভিযোগ এনে ২০২০ সালের ৭ জুন আটক করেছিল। তারপর বিচারকাজ শেষে দেশটির আদালত ২৮ জানুয়ারি রায় দেন। তার স্ত্রী সেলিনা ইসলামও জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের এমপি।

সংযুক্ত থাকুন