বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১
Logo
ভাই হারানোর বেদনায় কাতর নওয়াপাড়ার সাংবাদিক মহল

ভাই হারানোর বেদনায় কাতর নওয়াপাড়ার সাংবাদিক মহল

যশোরের শিল্প-বাণিজ্য ও বন্দর নগরী নওয়াপাড়া তথা অভয়নগর উপজেলায় সাংবাদিকদের বটবৃক্ষখ্যাত অভিভাবক, কারও ভাই, কারও বন্ধু, কারও চাচা, কারও বা পিতৃতুল্য পরম শ্রদ্ধার প্রাত্র আসলাম হোসেনের অকাল মৃত্যুতে বেদনায় কাতর হয়ে আছে এ অঞ্চলের সাংবাদিকমহল।


নীরব অশ্রু ঝরছে সাংবাদিকদের চোখে। কেউ কেউ গুমরে গুমরে কাঁদলেও কর্তব্যের কাছে পরাজিত হয়ে নিবিষ্ট মনে কাজ করে চলেছে। কেউ বা রাতের আঁধারে ভাই হারানোর বেদনায় নিরব অশ্রুপাতে কাটিয়ে দিচ্ছে নির্ঘুম রাত।


ছোট থেকে বড়, প্রখ্যাত থেকে নবিন এমন একজন সাংবাদিক নেই যার বুকের মাঝে হাহাকার ধ্বনী প্রকাশিত হয়নি। এত ভালোবাসা, এত শ্রদ্ধা, এত বেশি ভরসা ও অস্থার জায়গা আর দ্বিতীয়টি নেই।


এ শূন্যতা মানতে পারছেনা নওয়াপাড়ার সাংবাদিক সমাজ। কেবল সাংবাদিকরাই নয়, গোটা অভয়নগরের সাংবাদিকদের পরিবারগুলোতেও নেমে এসেছে প্রগাঢ় শূন্যতা।


প্রতিটি সাংবাদিকের পরিবারের সদস্যদের খোঁজ রাখতেন যে মানুষটি, কোন সাংবাদিক রোগগ্রস্থ হলে, বিপদে পড়লে, কোন সাংবাদিকের পরিবারের কোন সদস্য সমস্যায় থাকলে যে মানুষটি ছুটে যেতেন। দিতেন সাহস, প্রেরণা। অকাতরে বাড়িয়ে দিতেন সহযোগিতার হাত।


হোক সে যে মাপের সাংবাদিক, হোক সে বিরোধি শিবিরের, কিংবা গোপন ষড়যন্ত্রকারী বিপদে পড়লেই ত্রাতা হয়ে পাশে ছুটে যেতেন বৃহৎ হৃদয়ের মানুষটি। ছায়া দিতেন। স্নেহ ভালোবাসা কোন কিছুরই যেন কমতি ছিলোনা তার কাছে।


সেই মানুষটি আজ নেই। এ হাহাকার, এ শূন্যতা আজ প্রতিটি সাংবাদিক, প্রতিটি সাংবাদিক পরিবারের সদস্যদের হৃদয়ে বেদনার পাথর হয়ে চেপে আছে।

সংযুক্ত থাকুন