মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১
Logo
ফকিরহাটে ইফতারির শরবত নিয়ে বাক-বিতন্ডায় প্রাণ গেলো নারীর

ফকিরহাটে ইফতারির শরবত নিয়ে বাক-বিতন্ডায় প্রাণ গেলো নারীর

বাগেরহাটের ফকিরহাটে ইফতারের শরবত ঠান্ডা হওয়াকে কেন্দ্র এক গৃহবধুকে হত্যা করা হয়েছে। জানা যায়, গত বুধবার (২৮শে এপ্রিল) সন্ধ্যায় উপজেলার সদর ইউনিয়নের ব্রাহ্মণরাকদিয়া গ্রামের মোঃ নাসির শেখ এর ছোট ছেলে হামিম শেখ (১১) ও চাচাতো ভাই বাবু শেখ (২০) মসজিদে ইফতার করতে যায়। এসময় ইফতারিতে ব্যবহৃত শরবত ঠান্ডা হওয়া নিয়ে দুজনের ভিতর বাক বিতন্ডা ও ধাক্কাধাক্কি হয়।

 

পরে হামিম শেখ(১১) বাসায় এসে তার মা তাসলিমা বেগম-কে জানালে এবিষয় নিয়ে তার জা রাজিয়া বেগম এর সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন। বাকবিতন্ডার এক পর্যায়ে রাজিয়া বেগম তার কলেজ পড়ুয়া ছেলে বাবু শেখ (২০) কে ফোন করে জানালে তৎক্ষনাত ঘটনাস্থলে এসে তাসলিমা বেগমের উপর হামলা করে। এতে তাসলিমা বেগম ঘটনাস্থলে গুরুতর আহত অবস্থায় অচেতন হয়ে পড়লে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে যায়। সেখানে একদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর গত বৃহঃবার সন্ধ্যায় অবস্থার অবনতি হলে ফকিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (খুমেক) রেফার্ড করেন।

 

এদিন রাত আনুমানিক ৯ ঘটিকায় খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (খুমেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তাসলিমা বেগমের মৃত্যু হয়। এদিকে ঘটনা ধামাচাপা দিতে গোপনে দ্রুততার সহিত তাসলিমা বেগমের মরদেহ কবরস্থ করার সময় স্থানীয়দের সন্দেহ হলে বাধা প্রদান করে ফকিরহাট মডেল থানায় অবহিত করলে ফকিরহাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু সাইদ মোঃ খায়রুল আনাম সহ সংগীয় ফোর্স ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।এবং হত্যার সাথে জড়িত রাজিয়া বেগম-কে আটক করে।

 

এদিকে স্থানীয়রা জানান, ইফতারির শরবত ঠান্ডা হওয়াকে কেন্দ্র করে এই ঘটনা ঘটে এবং বাবু শেখ আসার পর মাথায় ইট দিয়ে আঘাত ও তলপেটে লাথি মারা হয়েছে। এবং এই হত্যা পরিকল্পিত বলে সকলের ধারণা। এব্যাপারে নিহতের বড় ছেলে মোঃ জামাল হাওলাদার বাদী হয়ে চাচা মহিবুল্লাহ শেখ, রাজিয়া বেগম ও বাবু শেখ-কে অভিযুক্ত করে ফকিরহাট মডেল থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নেন। তদন্ত কর্মকর্তা ফকিরহাট মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এস আই) এস, এম রায়হান জানান, প্রাথমিকভাবে আমরা জানতে পেরেছি ইফতারির শরবত-কে কেন্দ্র করে এই হত্যার ঘটনা ঘটেছে। তদন্ত শেষে জানা যাবে পূর্বপরিকল্পিত কিনা।

 

এ ব্যাপারে ফকিরহাট মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু সাইদ মোঃ খায়রুল আনাম জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আমরা ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেছি। সেই সাথে হত্যার সাথে জড়িত একজনকে আটক করেছি। এরিপোর্ট লেখা অবধি ফকিরহাট মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল।

সংযুক্ত থাকুন