বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১
Logo
ধোঁয়াশায় যশোর পৌরবাসী : চোখ এখন ২২ ফেব্রুয়ারির দিকে

ধোঁয়াশায় যশোর পৌরবাসী : চোখ এখন ২২ ফেব্রুয়ারির দিকে

নির্বাচন নিয়ে টানা-পোড়েন

যশোর পৌরসভা নির্বাচন নিয়ে ধোঁয়াশা যেন কাটছেই না। একের পর এক নিত্য নতুন খবরে বিড়ম্বনায় পড়ছেন প্রার্থীরা। আর ভোটাররা রয়েছেন ধাঁধায়। আসলে কবে হবে যশোর পৌরসভার নির্বাচন তা নিশ্চিত হতে পারছেনা কেউ? কিংবা আদৌ নির্বাচন হবে কিনা তা নিয়েও রয়েছে নানা জল্পনা-কল্পনা। এ অবস্থায় উচ্চ আদালতের নিয়মিত বেঞ্চে ২২ ফেব্রুয়ারী এ বিষয়টি উত্থপিত হওয়ার কথা রয়েছে। তাই এখন যশোর পৌরবাসীসহ পৌর নির্বাচনের প্রার্থীদের সবার চোখ ২২ ফেব্রুয়ারীর দিকে।

 

এদিকে উচ্চ আদালতের আদেশের আলোকে যশোর পৌরসভার সাধারণ নির্বাচন পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত স্থগিত রাখার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইসি সূত্র জানায়, শুক্রবার নির্বাচন ব্যবস্থাপনা ও সমন্বয়-১ শাখার জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব মোহাম্মদ মোরশেদ আলম স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে যশোর পৌরসভা সাধারণ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা এবং যশোর জ্যেষ্ঠ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবিরকে নির্দেশ দেয় ইসি। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও অবগতির জন্য মন্ত্রিপরিষদ সচিব ও প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিবকেও এর অনুলিপি প্রদান করা হয়েছে।

 

ইসির আদেশে বলা হয়েছে, হাইকোর্টের আদেশের আলোকে যশোর জেলার যশোর পৌরসভা সাধারণ নির্বাচন স্থগিত করার জন্য নির্বাচন কমিশন সিদ্ধান্ত প্রদান করেছেন। উল্লিখিত সিদ্ধান্ত অনুসারে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের জন্য অনুরোধ করা হলো। এর আগে ৯ ফেব্রুয়ারি যশোর পৌর নির্বাচন স্থগিতের নির্দেশ দেন উচ্চ আদালত। কিন্তু সেই স্থগিতাদেশ গত নয়দিনেও নির্বাচন কমিশনে না পৌছানোর কারনে গত ১২ ফেব্রুয়ারি প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়।

 

১৮ ফেব্রুয়ারী বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ স্থগিত করেছেন। একই সাথে আবেদনটির শুনানির জন্য আগামী ২২ ফেব্রুয়ারি নিয়মিত বেঞ্চে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। স্থগিতাদেশ স্থগিত করার সংবাদ যশোরে ছড়িয়ে পড়লে আবারও জোরেশোরে ২৮ ফেব্রুয়ারি নির্বাচনের তোড়জোড় শুরু করেন প্রার্থীরা।

 

হঠাৎ করেই আবার ইসির নির্বাচন স্থগিতাদেশ ঘোষণায় ফের মুষড়ে পড়েছে প্রার্থীরা। আর ভোটাররাও ধোঁয়াশায় ডুবে আছেন। যশোর জেলা জুড়ে এখন কেবল একটাই গুঞ্জন। যশোর পৌরসভা নির্বাচন আদৌ সঠিক সময় হবে কি না?

সংযুক্ত থাকুন