রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১
Logo
অভয়নগরে মাদক বিকিকিনি বেড়েছে

অভয়নগরে মাদক বিকিকিনি বেড়েছে

যশোরে শুরু হয়েছে ডোপ টেস্ট : মাদকসেবীরা আতংকে

এবার যশোরে শুরু হয়েছে ডোপ টেস্ট। যশোরে ছয় মাদকসেবীকে আটক করে ডোপ টেস্ট করে তাদের বিরুদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ। মামলাটি করা হয়েছে ২০১৮ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬ (১) টেবিলের ২১/৪২(১) মতে। পরে ওই মামলায় (নম্বর ৭৬/১১,৩,২১) বৃহস্পতিবার আসামিদের আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ।


আটক ব্যক্তিরা হলেন যশোর শহরের বারান্দিপাড়া এলাকার গোলাম মোস্তফার ছেলে মোহম্মদ রফিক (৫০), একই এলাকার নওয়াব আলীর ছেলে আশরাফ (৪৫), মোস্তাফিজুর রহমানের ছেলে নজরুল ইসলাম বাবু (৪৫), শংকরপুর এলাকার মৃত আব্দুল মালেকের ছেলে মাসুদ রানা (৩৪), একই এলাকার আব্দুল হাকিমের ছেলে আব্দুর রহিম (৪২) এবং নড়াইল সদরের কাঁঠালবাড়িয়া গ্রামের সত্তর শেখের ছেলে রাজু শেখ (২০)।


যশোর কোতয়ালী থানার ওসি মোহম্মদ তাজুল ইসলাম জানান, ‘যশোরের এসপি স্যার মাদকের বিরুদ্ধে অলিখিত যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় মাদক বিকিকিনি ও সেবনকারীদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। আজ (গতকাল) সকাল পৌনে এগারোটার দিকে শহরের নড়াইল বাসস্ট্যান্ড এলাকার জননী হোটেলের সামনে কয়েক ব্যক্তি গাঁজা মাদক সেবন করছিল।


খবর পেয়ে পুলিশ মাদক সেবনরত অবস্থায় তাদের আটক করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। হাসপাতালের ল্যাবে ডোপ টেস্ট করে মাদক সেবনের আলামত মেলে।


ওসি বলেন, ছয় মাদক সেবনকারীর বিরুদ্ধে এই ব্যবস্থা নেওয়ায় মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়বে। হাসপাতালের জরুরি বিভাগের ডাক্তার আহম্মেদ তারেক সামস ল্যাবের সংশিষ্ট কর্মচারীদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের আলামত মিলেছে। এদিকে যশোর শহরে মাদকসেবীদের ডোপ টেস্ট শুরু করায় বেশ আতংকে আছে মাদক সেবীরা। কখন কার ডোপ টেস্ট হয় এমন দুঃশ্চিন্তাও পেয়ে বসেছে তাদের।


অপরদিকে যশোর শহরে মাদক সেবীদের ডোপ টেস্টকে স্বাগত জানিয়েছে স্থানীয় সচেতন মহল ও সুধি সমাজ। তারা ডোপ টেস্ট অব্যাহত রাখার দাবি জানিয়েছেন। তবে যশোর শহরে মাদক সেবীরা আতংকে থাকলেও বর্তমানে বেশ ফুরফুরে মেজাজে আছে যশোরের শিল্প বানিজ্য ও বন্দর নগর নওয়াপাড়াসহ অভয়নগর উপজেলার মাদকসেবী ও ব্যবসায়ীরা। মাঝে মধ্যে যশোর ডিবি, র‍্যাব সহ অন্যান্য বাহিনীর অভিযানে দুই একজন মাদক ব্যবসায়ী ধরা পড়লেও অভয়নগর থানা পুলিশের মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান নেই বললেই চলে।


এদিকে স্থানীয়রা দাবি করেছেন, সম্প্রতি নওয়াপাড়া পৌরশহরসহ অভয়নগর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলে মাদক বিকিকিনি বেড়ে গেছে। এমনকি মাদক সেবীর ফোন পেয়ে প্রকাশ্যে যশোর-খুলনা মহাসড়কের নওয়াপাড়া বাজারে রাস্তার পাশে মোটর সাইকেলে এসে মাদক সাপ্লাই দিতে দেখা গেছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন। বৃহস্পতিবার বেলা তিনটার দিকে নওয়াপাড়া শংকরপাশা হাইস্কুল গেটের বিপরীতে যশোর-খুলনা মহাসড়কের পাশে একজন মাদকসেবীকে অপেক্ষা করতে দেখে স্থানীয় ২/১ জনের কৌতুহল হয়।

 

তারা দুর থেকে বিষয়টি ফলো করেন। কিছুক্ষন পর এলাকার চিহ্নিত এক মাদক ব্যবসায়ী মোটর সাইকেলে এসে তার হাতে মাদক গুজে দিয়ে টাকা পকেটে ঢুকিয়ে মোটর সাইকেলে সটকে পড়ে। এমন অভিযোগ নাম প্রকাশে নারাজ ঘটনাস্থলের পাশের একাধিক ব্যবসায়ীর। অভিযোগ রয়েছে এ চিত্র এখন নওয়াপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে শুরু করে বেঙ্গল গেট পর্যন্ত অহরহ দেখা যায়।

 

তাছাড়া নওয়াপাড়ার ভৈরব নদী সংলগ্ন ওয়াকওয়ে, প্রফেসরপাড়া, শাহী মোড়, ক্লিনিকপাড়া, বুইকারা, ভাঙ্গাগেটসহ গোটা অঞ্চলে বেশ কৌশলে এবং ফুরফুরে মেজাজেই মাদক বিকিকিনি চলছে।


একজন মাদক সেবীর সাথে কথা বলে জানাগেছে, সম্প্রতি খুলনা থেকে প্রতিদিন এক যুবক নওয়াপাড়ায় এসে ফেনসিডিল সরবরাহ করছে। তাকে প্রায়ই নওয়াপাড়া বাজারের বিভিন্ন চা দোকানে সময় কাটাতে দেখা যায়।


সবচেয়ে হতবাক করার মতো অভিযোগও রয়েছে মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে। নওয়াপাড়া বাজারের দুই/একজন দোকানীও গার্মেন্টস (কাপড়ের) ব্যবসা বা অন্য কোন ব্যবসার আড়ালে ফেনসিডিল বিকিকিনি করছে।

তবে স্থানীয়রা দাবি করেছেন, নওয়াপাড়া কাঁচা বাজার থেকে নূরবাগ পর্যন্ত এদের বিচরণ বৃদ্ধি পেয়েছে। স্থানীয়রা মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করতে স্থানীয় প্রশাসনসহ জেলা পুলিশ সুপারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

সংযুক্ত থাকুন