অভয়নগরে শেষদিনে ভোটার হতে নবীনদের দীর্ঘ লাইন : লোডশেডিংয়ে ভোগান্তি

0
41


স্টাফ রিপোর্টার
অভয়নগরের নওয়াপাড়া পৌরসভা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ শেষে ছবি তোলা কার্যক্রমও শেষ হয়েছে। তবে যারা বাদ পড়েছে তাদের জন্য গত বুধবার ও বৃহস্পতিবার ছবি তোলার জন্য সময় নির্ধারণ করে উপজেলা নির্বাচন অফিস। আর এতেই হুমড়ি খেয়ে পড়ে হাজার হাজার মানুষ। গত ২দিন ভোটার হতে নবীনদের ভোটারদের দীর্ঘ লাইন লক্ষ করা গেছে।

গত বুধবার দুপুরে নওয়াপাড়া শংকরপাশা মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে এ ছবি তোলা কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নারী ও পুরুষের আলাদা দুটি লাইনে প্রায় কয়েকশ মানুষ তিব্র গরম ও রোদ উপেক্ষা করে দাঁড়িয়ে আছে। অসহনীয় গরম আর লোডশেডিংয়ের কারণে দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে কয়েকজন মহিলা মাথা ঘুরে পড়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

এছাড়াও সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও অনেকে ছবি তুলতে না পেরে চরম ভোগান্তির শিকার হয়েছে। অভয়নগরের শেষপ্রান্ত সিদ্ধিপাশা থেকে আমেনা বেগম সকাল ৯ টায় আসলেও দুপুর ১টার পরেও তিনি ছবি তুলতে পারেননি। ধোপাদির মাইমুনা আক্তার নামে একজন নারী জানান, অসুস্থ শরীর নিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে আছি কিন্ত সিরিয়াল ছোট হওয়ার নাম নেই। কালিশাকুল গ্রামের রাখি মন্ডল জানান, ছোট বাচ্চা কোলে নিয়ে ৫/৬ ঘন্টা দাঁড়িয়ে আছি। কাদিরপাড়ার সাইফুল জানান, কোন নিয়ম শৃঙ্খলা নেই। যে যার মত লাইনে ঢুকে পড়ছে। নাউলি গ্রামের ইয়ার আলি জানান, আমাদের পরে এসে অনেকে আগে ছবি তুলে চলে গেছে। এ অভিযোগের সত্যতা মেলে কিছুক্ষণ পরেই, গাজিপুরের তালহা জুবায়ের পরে এসে বন্ধুদের মধ্যে ঢুকে আগে ছবি তোলায় অনেকে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাচন অফিসার হাবিবুর রহমান দৈনিক নওয়াপাড়াকে জানান, কিছু অভিযোগ থাকবেই তবে প্রথম দিন সকাল ৯টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত মোট ৯৭০ জনের ছবি তোলা সম্ভব হয়েছে। আজ (গতকাল) রাত সাড়ে ৯টার বেশি বাজে এখনো কার্যক্রম চলছে। এরপরও যদি কেউ বাদ পড়ে তবে নির্বাচন অফিসে এসে যোগাযোগ করলে তাকে ভোটার করে নেওয়া হবে।

Comment using Facebook