অভয়নগরে গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য ঘুড়ি ওড়ানো প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

0
25


স্টাফ রিপোর্টার
অভয়নগরের সিদ্ধিপাশা ইউনিয়নে ইউপি সদস্য মো.বাবুল সরদারের উদ্যোগে ঘুঁড়ি ওড়ানো প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (১০ জুন) বিকালে ইউনিয়নের চন্দনগাতী বাবুল সড়কে এ ঘুঁড়ি উৎসবের আয়োজন করা হয়। পড়ন্ত বিকেলে আশপাশের এলাকার শতাধিক মানুষ প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। দূর দূরান্তে থেকে মানুষ আসে গ্রাম বাংলার হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী ঘুড়ি ওড়ানো প্রতিযোগিতা দেখতে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের ঘুড়ি নিয়ে হাজির হয়েছিলেন নানা বয়সি মানুষ। নীল আকাশে উড়ছে লাল, হলুদ, সবুজ, বেগুনি রঙের ঘুড়ি।

লাটাই হাতে অন্যজনের ঘুড়ির সুতা কাটার সর্বাত্মক চেষ্টা, কখনো একটি ঘুড়ি অপরটিকে ছাড়িয়ে উঠে যাচ্ছে উঁচুতে। যান্ত্রিক জীবন ছেড়ে প্রকৃতির কাছে এরকম ঘুড়ি ওড়ানোর আয়োজনে অনেকেই ফিরে গেছেন তাদের শৈশবে। প্রতিযোগিতা শেষে অংশগ্রহণকারী বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। পুরস্কার বিতরণী সময় উপস্থিত ছিলেন অনুষ্ঠানের আয়োজক ইউপি সদস্য মো.বাবুল সরদার, জেলা পরিষদের সদস্য লায়লা খাতুন, সিনিয়র প্রিন্সিপাল অফিসার (রুপালী ব্যাংক) এসএম মুরাদুল ইসলাম, নওয়াপাড়া পৌরসভার (৭.৮.৯) সংরক্ষিত আসনের কাউন্সিলর রাশিদা বেগম, ইউপি সদস্য শেখ হাফিজুর রহমান, ইউপি সদস্য সংরক্ষিত (৪.৫.৬) জোহরা খাতুন, ডা.মুক্তার হোসেন, নূর ইসলাম মনি প্রমূখ।

ঘুড়ি উৎসবে অংশ নেয়া প্রতিযোগিরা বলেন, এটি অবশ্যই ভাল একটি আয়োজন। এটি এমন একটি উৎসব যেখানে সকল বয়সী মানুষ এক হয়েছে। এটি মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে। আয়োজকে অবশ্যই ধন্যবাদ জানাতে হবে যে, একদিনের জন্য হলেও আমাদের ছোটবেলার স্মৃতিকে মনে করিয়ে দিয়েছে। অনুষ্ঠানের আয়োজক মো.বাবুল সরদার বলেন, যুব সমাজকে মোবাইল ফোন ও মাদকের আসক্তি থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। এ উৎসব ও প্রতিযোগিতা প্রতিবছর অব্যাহত থাকবে।২০১৪ সাল থেকে এই ঘুড়ি ওড়ানো প্রতিযোগিতার আয়োজন করে আসছি। করোনার কারণে মাঝে দুই বছর বন্ধ ছিলো।

Comment using Facebook