শ্যামনগরে এমআর ক্লিনিকে শিশু মৃত্যু: মোটা অংকের টাকায় রফাদফা

0
26

শ্যামনগর সংবাদদাতা

শ্যামনগর এমআর বে-সরকারী ক্লিনিকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডাঃ আনিছুর রহমান এর ভূল অপারেশনে ৮ বছরের শিশুর করুণ মৃত্যু হয়েছে। সে কালিগঞ্জ উপজেলার রানীতলা (পশ্চিম মৌতলা) গ্রামের হাফিজুর রহমানের কন্যা রাফিজা খাতুন। তার পরিবার সূত্রে জানা যায় রাফিজা পেটে ব্যাথা অনুভব করলে তাকে গত ২৯ মে শ্যামনগর এমআর ক্লিনিকে নিয়ে গেলে ডাক্তার আনিছুর রহমান পরীক্ষা শেষে তার এ্যাপোন্ডিস হয়েছে বলে নিজের ক্লিনিকে গত ৬ মে সোমবার অপারেশন করে। এরপর রাফিজার শারিরীক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। এক পর্যায়ে রাফিজা নিঃস্তব্দ হয়ে যায়।

এ সময় তার স্বজনরা ডাক্তার আনিছুর এর সাথে কথা বললে তিনি বলেন রোগী এখনও বেঁচে আছে তাকে দ্রুত সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। রাফিজাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার বলেন রাফিজা ৬ জুন রাতেই মারা গেছে এবং ভূল অপারেশন করা হয়েছে মর্মে লিখিত পত্র প্রদান করেছেন। শিশুটির পরিবারের পক্ষ থেকে লাশ শ্যামনগর থানায় নিয়ে আসে। ঘটনায় থানা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য হাসপাতালের দুইজনকে থানায় নিয়ে আসে।

এ বিষয়ে শ্যামনগর থানার ওসি তদন্ত হাওলাদার সানোয়ার হোসাইন মাসুম এর মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন ক্লিনিকের দুইজনকে জিজ্ঞাসার জন্য আনা হয়েছিল সত্য। তবে নিহতের আত্মীয় স্বজন কোন মামলা করবেনা বলে লিখিত দিয়ে শিশুটির লাশ থানা থেকে বাড়িতে নিয়ে গেছে। এ বিষয়ে ডাক্তার আনিছুর রহমানের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলেও তিনি বলেন, শিশুটি মারা যাওয়ার বিষয়ে তিনি কোন কিছু জানেন না।

শ্যামনগরের সুধীসমাজ বলেন রাফিজার লাশ তার পরিবারের পক্ষ থেকে মামলা করার জন্য সাতক্ষীরা থেকে শ্যামনগর থানায় নিয়ে আসেন। এরপর ডাঃ আনিছুর মোটা অংকের টাকায় থানা ও রাফিজার পরিবারকে ম্যানেজ করায় এরুপ একটা সত্য ঘটনার কোন বিচার হলো না। বিষয়টি তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে শ্যামনগরবাসী।

Comment using Facebook