অভয়নগরের ডি.আই.এন.জি.এস স্কুলের প্রাচীর ভেঙ্গে ক্লাব করার চেষ্টা: প্রসাসনের হস্ত ক্ষেপে বন্ধ

0
72

মেহেদী হাসান ইরান

অভয়নগর উপজেলার ৮নং সিদ্ধিপাশা ইউনিয়নের নাউলি ডি.আই.এস.জি.এস উন্নয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাচীর ভেঙ্গে কে জি স্কুলের গেটের পার্শ্বে যুব সমাজের জন্য ব্যক্তি মালিকনা মুজিবুর রহমান স্পোর্টং ক্লাব তৈরি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার বিকালে ঘটনা স্থলে গিয়ে দেখাগেছে স্কুলের প্রায় ৩০ ফুট প্রাচীর ভেঙ্গে ক্লাব ঘর তৈরি করার জন্য পাঁকা ইটের গাথুনি দিয়ে উচু করা হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানাগেছে স্কুলের জায়গা দখল করে ক্লাব তৈরির চেষ্টার বিরুদ্ধে ফুসে উঠেছে এলাকাবাসী। তবে উত্তেজনা ঠেকাতে প্রসাসনের হস্তক্ষেপে ক্লাবের কাজ বন্ধ রয়েছে।

অভয়নগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে দেওয়া লিখিত অভিযোগ থেকে জানাগেছে উপজেলাধীন ৮নং সিদ্ধিপাশা ইউনিয়নের ০১নং ওয়ার্ড নাউলী গ্রামের নাউলি বাজারের পশ্চিম পার্শ্বে ডি.আই.এন.জি.এস উন্নয়ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় অবস্থিত। একই মাঠের একই প্রাচীরের মধ্য নাউলি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, নাউলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং মল্লিক সোলায়মান কিন্ডার গার্টেন নামক ৩টি বিদ্যালয় রয়েছে। যার চতুরদিকে একটি সীমানা প্রাচীর রয়েছে। আর,এস রেকর্ডীয় খতিয়ান নং-০২, দাগ নং-৪৩৯, বিদ্যালয়ের খেলার মাঠ রেকর্ডিয় মালিক বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে শিক্ষা বিভাগ নাউলি ডি.আই.এন.জি.এস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের। উক্ত জায়গাতে ক্লাব প্রতিষ্ঠার অপতৎপরতা চলছে। এলাকাবাসী জানিয়েছেন ক্লাবটি প্রতিষ্ঠিত হলে ৩টি বিদ্যালয়ের শিক্ষার চরম ব্যাহত সহ কোমলমতি শিক্ষার্থীদের খেলাধুলার সমস্যা সৃষ্টি হবে। এ দিকে ক্লাবের কাজ বন্ধ করতে সোচ্ছার এলাকাবাসী। স্থানীয় গপ্ফার শেখ জানিয়েছেন ১৯৮৪ সালে নবারুন যুবসংঘের নামে জমি ছিলো, ক্লাব না থাকায় ১৯৯০ সালে নাউলি স্কুলের নামে রেকর্ড হয়।

তিনি আরো জানান ২০১০সালে ভুয়া লোক সাজিয়ে নবারুন যুবসংঘের জমি হস্তান্তর করিয়ে নেয় বর্তমান সভাপতি। যেখানে আজ ক্লাব করার পায়তার চলছে। মল্লিক সোলাইমান হোসেন কেজি স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি শেখ জাহাঙ্গীর হোসেন জানিয়েছেন কেজি স্কুল, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয় সহ মসজিদ, কবরস্থান এর মাঝে ক্লাব তৈরি হলে সমাজে অশান্তি দেখাদিতে পারে। নাউলি স্কুলের প্রধান শিক্ষক ইব্রাহিম হোসেন জানিয়েছেন প্রস্তাবিত ক্লাবের জায়গাটি আর এস রেকডিও মালিক স্কুল তবে পার্শ্বে সাবেক ক্লাব নবারুন যুব সংঘের জায়গাও আছে। তবে ব্যক্তি মালিকনা জায়গাতে ক্লাব হচ্ছে। নাউলি স্কুলের সভাপতি মল্লিক মুজিবুর রহমান জানিয়েছেন ক্লাবটি তার নিজের নামেই হচ্ছে আরএস রেকডিও মালিক স্কুল হলেও জমিটি এখন ব্যক্তি মালিকলা, নামপত্তন ও হয়েছে। তিনি আরো জানিয়েছেন যুব সমাজকে সঠিক পথে পরিচালনা করতে খেলাধুলার বিকল্প নেই, তাই ক্লাব তৈরি করছেন তিনি। স্থানীয় পুলিশ প্রসাশন সূত্রে জানাগেছে যেকোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ক্লাবের কাজ বন্ধ রাখা হয়েছে।

Comment using Facebook