রামপালে মাত্র ১৪ দিনের ব্যবধানে আরও একজনকে কুপিয়ে হত্যা

0
34

বাগেরহাট সংবাদদাতা

রামপালে তুচ্ছ ঘটনায় মাত্র ১৪ দিনের ব্যবধানে দিদারুল আলম (৫০) নামের আরও এক ব্যক্তিকে নির্মমভাবে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে হত্যার ঘটনা ঘটনো হয়েছে। রামপাল থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে এক আসামিকে আটক করেছে।

এ ঘটনায় ৪ জন কে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন নিহতের বড়ভাই মল্লিক দেলোয়ার হোসেন। রামপাল থানার ওসি ও নিহতের স্বজন মল্লিক দেলোয়ার হোসেনের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য জানাগেছে, উপজেলার কুমলাই গাববুনিয়া গ্রামের উইনুস আলীর পুত্র দিদারুল আলম বুধবার রাতে বাড়িতে অবস্থান করছিলেন। রাত অনুমান ৯ টার সময় পার্শ্ববর্তী আ. সাত্তার ও তার ব্যাংকার পুত্র আবু বকার লাঠি ও ধারালো দা নিয়ে দিদারের বাড়িতে গিয়ে গালাগালি এবং কথা কাটাকাটি শুরু করেন।

এ পর্যায়ে সাত্তার লাঠি দিয়ে পিটিয়ে দিদারকে মাটিতে ফেলে দেয়। এ সময় তার পুত্র আবু বকার দা দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে গুরুতর জখম করে চলে যায়। ওই সময় খবর পেয়ে আহত দিদারকে রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন। নিহতের স্ত্রী তাহমিনা জানান, আসামি সাত্তার এলাকায় বলাৎকার করে বেড়ায়। এই কথা সাত্তারের পুত্র ব্যাংকার আবু বকার কে বলায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে পিতা পুত্র মিলে দিদারকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

নিহত দিদার একজন ছোট মৎস্যঘের ব্যবসায়ী বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে রামপাল থানার ওসি মোহাম্মদ সামসুদ্দীন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি মামলা দায়ের ও একজন আসামি গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারের জোর চেষ্টা চলছে। উপর্জনক্ষম স্বামীকে হারিয়ে ওই পরিবারে চলছে শোকের মাতম। তারা দ্রুত বিচারের দাবী জানিয়েছেন। উল্লেখ্য, ৬ এপ্রিল উপজেলার উজলকুড় গ্রামের কৃষক ওমর ফারুক কে হাসে ধান খাওয়াকে কেন্দ্র করে তার প্রতিবেশীরা অনুরূপভাবে কুপিয়ে হত্যা করে। মাত্র ১৪ দিনের ব্যবধানে এমনভাবে দুই জন খুন হওয়ায় রামপালে উৎকণ্ঠা বিরাজ করেছে।

Comment using Facebook