অভয়নগরে ধর্ষক পিতা আশরাফুল মোড়লকে আটক করে কোর্টে প্রেরণ

0
87

স্টাফ রিপোর্টার

১৪ বছর বয়সি সৎ মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় পিতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। যশোরের অভয়নগর উপজেলার মশরহাটী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার (১৯ এপ্রিল) রাতে ধর্ষক আশরাফুল মোড়লকে (৪৫) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মেয়ের মা বাদি হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের পর তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

ধর্ষক আশরাফুল মোড়ল খুলনা জেলার দিঘলিয়া থানার সেনহাটী গ্রামের ইনছার আলী মোড়লের ছেলে। মামলার বাদি জানান, প্রথম স্বামীর মৃত্যুর পর একমাত্র মেয়েকে নিয়ে তিনি সেনহাটী গ্রামে বসবাস করতেন। ২০১২ সালে পারিবারিকভাবে একই গ্রামের আশরাফুল মোড়লের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর একমাত্র মেয়েকে নিয়ে তারা অভয়নগরে চলে আসেন এবং মশরহাটী গ্রামে একটি ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করেন।

একমাত্র মেয়ের লেখাপড়া ও সংসারের খরচ যোগাতে স্বামী আশরাফুল ভ্যান চালাতে শুরু করেন। পরবর্তী সময়ে সংসারে একটি পুত্র সন্তান জন্মগ্রহণ করে। সংসারের খরচ বেড়ে যাওয়ায় তিনি একটি জুট মিলে অস্থায়ী শ্রমিক হিসেবে কাজ শুরু করেন। কর্মের কারণে ঘরের বাইরে থাকার সুযোগ কাজে লাগিয়ে তার স্বামীর নজর পড়ে সৎ মেয়ের উপর। তিনি আরো জানান, চলতি বছরের ১৫ মার্চ মেয়েকে একা ঘরে পেয়ে তার সৎ বাবা জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন এবং ঘটনাটি কাউকে জানালে খুন করবে বলে ভয়ভীতি দেখান। গত ১৮ এপ্রিল সোমবার সৎ মেয়েকে ঘরে একা পেয়ে তার পিতা পুনরায় ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এসময় মেয়ের চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে আসে এবং আশরাফুল মোড়লকে আটকে রেখে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে তাকে নিয়ে যায়। স্বামীর বিরুদ্ধে মেয়েকে ধর্ষণ করায় মামলা করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এ ব্যাপারে অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম শামীম হাসান জানান, সৎ মেয়েকে ধর্ষণের মামলায় আশরাফুল মোড়ল নামে এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে তিনি ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন। বুধবার (২০ এপ্রিল) মেডিক্যালের জন্য মেয়েটিকে যশোর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। একই দিন আসামিকে যশোর আদালতে চালান দেয়া হয়েছে।

Comment using Facebook