আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঝিনাইদহের কালীগঞ্জে জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণ

0
20

বিশেষ প্রতিনিধি, ঝিনাইদহ

ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার তত্ত্বীপুর গ্রামে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বসত ঘরের সামনে দিয়ে জোর পূর্বক রাস্তা নির্মাণ করে চলেছে প্রতিপক্ষরা।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগি শুকুর আলী বাদি হয়ে আদালতের মাধ্যমে ১৪৪ ধারা আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত মামলা গ্রহণ করে নালিশী জমিতে প্রবেশে বিবাদী পক্ষকে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। জানা যায়, তত্ত্বীপুর মৌজার মৃত শহিদুল ইসলাম ও মৃত আব্দুর রহিমের ১৪৩৮,১৪৩৭এবং ১৪৩৯ দাগ নং জমির উপর দিয়ে প্রতিপক্ষ আতিয়ার রহমান জোরপূর্বক রাস্তা নির্মাণ করার চেষ্টা করে। সেখানে ওই জমির মালিক মৃত শহিদুল ইসলামের ছেলে শুকুর আলী বাঁধা প্রদান করায় শুকুর আলী ও তার মা রোকেয়া বেগমকে মারাত্মকভাবে আহত করে আতিয়ার রহমানের সন্ত্রাসীরা।

তত্ত্বীপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহিমের ছেলে আজিজুল ইসলাম জানান, বিগত একশত বছরের পূর্ব থেকে আমার বাপ দাদার পৈত্রিক ভিটায় পর্যায়ক্রমে আমরা বসবাস করে আসছি। বিগত সময় কখনও এই জায়গা দিয়ে রাস্তা ছিল না। জোর পূর্বক আমাদের বাড়ির উঠান দিয়ে রাতের আধারে এবং দিনে কতিপয় সন্ত্রাসীদের উপস্থিতিতে মাটি দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করতে গেলে আমরা আদালতের স্বর্ণাপন্ন হই। তারপরও তারা কোন আইন আদালত মানছে না।

গ্রামের কতিপয় সন্ত্রাসী লোকদের দ্বারা আমাদের বিভন্নভাবে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতিপক্ষ আতিয়ার রহমান। আমি খুলনা মেডিকেলে চাকুরি করি। আমার একটিমাত্র ভাই প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তরে চাকুরি করেন। বাড়িতে শুধু আমার মা একা থাকেন। আমরা বর্তমানে পরিবারটিতে চরম নিরাপত্তাহীনতায় দিন পার করছি। শুকুর আলীর মা ও মৃত শহিদুল ইসলামের স্ত্রী রোকেয়া বেগম জানান, আমার ঘরের দরজার সামনে দিয়ে আমাদের নিজস্ব জমির বুক চিরে সন্ত্রাসীদের হাত করে প্রতিপক্ষ আতিয়ার রহমান জোরপূর্বক রাস্তা নিমার্ণের চেষ্টা করে। তাতে বাধা দেওয়ায় আমার এবং আমার ছেলে শুকুর আলীকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। এছাড়াও আমার নির্মাণাধীন গোয়াল ঘর ভেঙ্গে দেয়।

পরবর্তীতে আবারও এ ঘটনায় শুকুর আলী বাদি হয়ে আদালতে মামলা করায় বিষয়টি জানতে পেরে বিবাদি আতিয়ার রহমান কিছু সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোকদের সহযোগিতায় অন্যত্র থেকে গাড়ি যোগে মাটি নিয়ে যেয়ে বাদির স্বত্ত্ব দখলীয় বসত বাড়ির সামনে উঠানের উপর দিয়ে মাটি ফেলে রাস্তা নির্মাণ করার চেষ্টা করলে বাদি শুকুর আলী তার লোকজন লইয়া বিবাদী আতিয়ারকে বাধা দেয়। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহুর্তে বড় রকমের দূর্ঘটনার সম্ভাবনা রয়েছে। এ বিষয়ে বাদি শুকুর আলী স্থানীয় চেয়ারম্যান ও পুলিশ প্রশাসনের সহোযোগিতা কামনা করেছেন।

Comment using Facebook