সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে জয় পেল ইংল্যান্ড

0
28

ক্রীড়া ডেস্ক

চেনা আঙিনায় শুরুতে পিছিয়ে পড়ার ধাক্কা সামলে ইংল্যান্ড ঘুরে দাঁড়াল দারুণভাবে। হ্যারি কেইন ধরে রাখলেন গোলের ধারাবাহিকতা।

সুইজারল্যান্ডকে হারিয়ে অপরাজেয় যাত্রা অব্যাহত রাখল গ্যারেথ সাউথগেটের দল। লন্ডনের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে শনিবার আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচটি ২-১ গোলে জিতেছে স্বাগতিকরা।

ব্রিল এমবোলো সফরকারীদের এগিয়ে নেওয়ার পর প্রথমার্ধেই সমতা টানেন লুক শ। বিরতির পর জয়সূচক গোলটি করেন অধিনায়ক কেইন। ইংল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি গোলের তালিকায় গ্যারি লিনেকারকে (৪৮) ছাড়িয়ে স্যার ববি চার্লটনের (৪৯) পাশে বসেছেন ২৮ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। ওপরে আছেন কেবল ওয়েইন রুনি (৫৩)। গত নভেম্বরে বাছাইপর্বের শেষ রাউন্ডে সান ম্যারিনোকে ১০-০ গোলে উড়িয়ে কাতার বিশ্বকাপের টিকেট নিশ্চিত করে ইংল্যান্ড। সেই ম্যাচের পর প্রথমবার খেলতে নেমে চতুর্দশ মিনিটে প্রথম ভালো সুযোগ পায় তারা।

সতীর্থের পাস ধরে এগিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে কনর গালাঘারের শট গোলমুখে হেডে ক্লিয়ার করেন এক ডিফেন্ডার। স্বাগতিক দর্শকদের হতাশ করে ২২তম মিনিটে এগিয়ে যায় সুইজারল্যান্ড। ডান দিক থেকে জেরদান শাচিরির দারুণ ক্রসে ছয় গজ বক্সের মুখে হেডে গোলটি করেন ফরোয়ার্ড এমবোলো। তিন মিনিট পর দ্বিগুণ হতে পারত ব্যবধান। কাছ থেকে ফপিয়ান ফ্রেইয়ের জোরাল শট গোলরক্ষক জর্ডান পিকফোর্ডের হাতে লেগে ক্রসবারে বাধা পায়। ৩৬তম মিনিটে ডি-বক্সে ফিল ফোডেনের পাসে কাছ থেকে অভিষিক্ত কাইল ওয়াকার-পিটার্সের শট পোস্টে লাগে। যদিও অফসাইডের পতাকা তোলেন লাইন্সম্যান। দুই মিনিট পর আরেক দফা বেঁচে যায় ইংল্যান্ড। শাচিরির বাঁকানো কর্নারে বল পোষ্টে লাগে। পরে বাইরে মেরে সুযোগ হারান এমবোলো। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে সমতায় ফেরে ইংল্যান্ড। প্রতিপক্ষের ভুলে বল পেয়ে ওয়াকার-পিটার্স বাড়ান গালাঘারকে। এই মিডফিল্ডারের পাসে ২০ গজ দূর থেকে বাঁ পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন। দ্বিতীয়ার্ধে কমে আসে খেলার গতি। ৭১তম মিনিটে কেইনের দুর্বল হেডে বল সহজেই ধরে ফেলেন সুইস গোলরক্ষক। ৭৮তম মিনিটে সফল স্পট কিকে দলকে এগিয়ে নেন কেইন। জ্যাক গ্রিলিশের কর্নারে অভিষিক্ত মার্ক গেয়ির হেড সুইজারল্যান্ডের স্টেভেন জুবার হাতে লাগলে ভিএআরের সাহায্যে পেনাল্টিটি দিয়েছিলেন রেফারি। জাতীয় দলের সবশেষ তিন ম্যাচে কেইনের গোল হলো ৮টি। সান ম্যারিনোর বিপক্ষে চার গোল করার আগে হ্যাটট্রিক করেছিলেন আলবেনিয়ার বিপক্ষে।

নির্ধারিত সময়ের শেষ মিনিটে কাছ থেকে কনর কোডির হেড সুইস গোলরক্ষক ঝাঁপিয়ে ফেরালে ব্যবধান আর বাড়েনি। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এই নিয়ে টানা ২১ ম্যাচে অপরাজিত রইল ইংল্যান্ড। আগামী জুনে নেশন্স লিগে মাঠে নামার আগে আর একটি প্রীতি ম্যাচ খেলবে সাউথগেটের দল। আগামীকাল মঙ্গলবার ওয়েম্বলিতেই তাদের প্রতিপক্ষ কোত দি ভোয়া।

Comment using Facebook