খুলনায় মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন

0
103

খুলনা ব্যুরো

শুরু হয়েছে বাঙালির স্বপ্নসাধ যৌক্তিক পরিণতির মাস অগ্নিঝরা মার্চ। বাংলাদেশের সুদীর্ঘ রাজনৈতিক ইতিহাসে শ্রেষ্ঠতম ঘটনা হচ্ছে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ। সশস্ত্র স্বাধীনতা সংগ্রামের এই ঐতিহাসিক ঘটনার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতির কয়েক হাজার বছরের সামাজিক-রাজনৈতিক স্বপ্নসাধ পূরণ হয়।

অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম সন্ধ্যায় খুলনার গল্লামারী বধ্যভূমির স্বাধীনতা স্মৃতিসৌধে বাংলাদেশ বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড খুলনা মহানগর শাখার উদ্যোগে শ্রদ্ধা নিবেদন ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন করা হয়।

বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ডাঃ দিদারুল আলম শাহীন বলেন, বাঙালি জাতির জীবনে একটি ঐতিহাসিক মাস। ১৯২০ সালের ১৭ মার্চে জাতির পিতা জন্মগ্রহণ করেন, ১৯৭১ সালের ৭ই মার্চ জাতির পিতা স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। ২৫ মার্চ কালোরাতে পাক হানাদার বাহিনী নিরস্ত্র বাঙালির উপর নির্বিচারে পৃথিবীর ইতিহাসে বর্বোরচিত গণহত্যা শুরু করে। নয় মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদ আর ২ লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে রক্তে কেনা আমাদের এ স্বাধীনতা।

আমাদের লাল সবুজের পতাকা। এ মাসের ২৬ মার্চ আমাদের মহান স্বাধীনতা দিবস। বীর মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের কার্যনিবাহী সদস্য আল মামুন সুমন বলেন, অগ্নিঝরা মার্চের প্রথম সন্ধ্যায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জাতীর শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মরণ করার মধ্য দিয়ে তরুণ প্রজন্মের নিকট মহান স্বাধীনতার ইতিহাস তুলে ধরা। তরুণ প্রজন্মকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাকে উন্নত সমৃদ্ধ দেশে পরিনত করা হবে।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন, আওয়ামী লীগ নেতা আল মাসুম খান, মোহম্মদ আলী, শেখ ইব্রাহীম, শেখ স্বপন হাসান, শেখ মুন্না আহমেদ, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্টার এফ আরিফ নেওয়াজ, জয় বাংলা সরকারী কলেজের সহকারী অধ্যাপক শাহনা পারভীন, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজের প্রভাষক সুরাইয়া পারভীনসহ প্রমুখ।

Comment using Facebook