চৌগাছায় শ্বশুরবাড়িতে জামাইয়ের মৃত্যু

0
62

যশোর অফিস

চৌগাছায় শ্বশুরবাড়িতে বেড়াতে এসে মিনারুল ইসলাম (২৫) নামে এক যুবকের মৃত্য হয়েছে। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে।

মৃত মিনারুল যশোর সদর উপজেলার কমলাপুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে এবং চৌগাছা উপজেলার নারায়ণপুর গ্রামের সন্টুর মেয়ের জামাই। রবিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাত নয়টার দিকে চৌগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ লাশটি থানায় নেয়। সোমবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে পাঠায়। মিনারুলের শ্বশুর সন্টু চৌগাছা হাসপাতালে বলেন, বছর দুই আড়াই বছর আগে আমার মেয়ে খাদিজার সাথে মিনারুলের বিয়ে হয়। তাদের পাঁচ মাস বয়সী একটি কন্যা রয়েছে।

মিনারুল রাজমিস্ত্রির সহকারী হিসেবে কাজ করতেন। কিছুদিন ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। ডাক্তার দেখানোর পর কিছুদিন ধরে কবিরাজের কাছ থেকে ওষুধ খেয়ে কিছুটা সুস্থ হয়। রবিবার দুপুরে আমার মেয়ে ও নাতি, মিনারুলের ১৩ বছর বয়সী বোন মাছুরাসহ আমাদের বাড়িতে বেড়াতে আসে।

তিনি বলেন, দুপুরে খাওয়ার পর আমি বাড়িতে গাড়ি (স্থানীয় যান, আলমসাধু) রেখে ধান ক্ষেতে যায়। বিকেলে মিনারুল আমার বাবা ও মার সাথে বাড়িতে একটি খাটের উপর বসে গল্প করছিলো। এসময় হঠাৎ তিনি খাটের উপর থেকে মাটিতে পড়ে গেলে আমাকে বাড়ি থেকে ফোন করে করে বলে দ্রুত বাড়ি আসো, জামাই কেমন করছে।

আমি দ্রুত বাড়ি যেয়ে নিজের গাড়িতে করে জামাইকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসতে আসতে সন্ধ্যা হয়ে যায়। হাসপাতালে আনার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে হাসপাতাল থেকে থানায় সংবাদ দিলে পুলিশ এসে লাশ থানায় নেয়। হাসপাতালে চৌগাছা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এনামুল হক লাশটির সুরাহতল প্রতিবেদন করেন।

তিনি বলেন, ময়নাতদন্ত ছাড়া বলা যাচ্ছে না ঠিক কি কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Comment using Facebook