ফকিরহাটের টাউন নওয়াপাড়া থেকে ফলতিতা মহাসড়কে অনিয়ম ও চাঁদাবাজীর অভিযোগ

0
71

ফকিরহাট সংবাদদাতা

ঢাকা-খুলনা হাইওয়ের ফকিরহাট উপজেলাস্থ টাউন নওয়াপাড়া মোড় থেকে ফলতিতা সেতু পর্যন্ত মহাসড়কে চলছে নানা অনিয়ম। কাঁটাখালী হাইওয়ে থানা ও মোল্লাহাটের মাদ্রাসাঘাট হাইওয়ে ফাঁড়ির টানাপোড়নে দায় নিচ্ছে না পুলিশ।

বেড়েই চলছে জনভোগান্তি। ফকিরহাটের মধ্যে হলেও এ অংশটি মোল্লাহাট উপজেলার মাদ্রাসাঘাট হাইওয়ে ফাঁড়ির অধিনে থাকায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটলে কাটাখালী হাইওয়ে পুলিশের কিছু করার থাকে না।

নওয়াপাড়া মোড় থেকে ফলতিতা সেতু পর্যন্ত মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে অবৈধ পার্কিং করে গাড়ি লোড-আনলোড, ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন ধরণের অপকর্মের শিকার হচ্ছে সাধারণ মানুষ। অবৈধ পাকিং ও মহাসড়কের উপর লোড আনলোড করার কারণে প্রায়ই ঘটছে ছোট-বড় দুর্ঘটনা। মাঝে মাঝে প্রাণহানির মতো অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটছে। এ সড়কে চলাচলরত মানুষের দাবী মোল্লাহাট হাইওয়ে ফাঁড়ির অধিনে মহাসড়কের অংশে কয়েকটি স্পটে বসে চেকিংয়ের নামে বিভিন্ন অজুহাতে চাঁদাবাজী। অথচ ছিনতাই ও রাস্তার শৃঙ্খলা রক্ষায় নেই কোন কার্যকারী পদক্ষেপ।

এ ব্যাপারে মোল্লাহাট ফাড়ি ইনচার্জ হাসান আলীকে বিষয়টি বারবার অবহিত করা হলেও এপর্যন্ত তিনি কোন কার্যকর ব্যবস্থা নেননি। চাদাবাজির বিষয়টি তিনি অস্বীকার করলেও যানবাহনে চাঁদাবাজির ঘটনা এখনও বন্ধ হয়নি। একাধিক ভুক্তভোগি এ বিষয়ে ফকিরহাট উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি শেখ ফারুক হোসেন এর কাছে অভিযোগ আকারে বক্তব্য দিয়েছেন।

কাটাখালী হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলী বলেন, মোল্লাহাটের দিক থেকে ফকিরহাট টাউন নওয়াপাড়া মোড় পর্যন্ত মহাসড়কটি মাদ্রাসাঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাড়ির অধিনে। মহাসড়কের এ অংশের সকল দায় দায়িত্ব উক্ত ফাড়ির উপর ন্যস্ত। এ ব্যাপারে প্রশাসনের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের কাছে সকল মহলের জোর দাবী অনতিবিলম্বে জনভোগান্তি ও চাঁদাবাজি বন্ধ করে মহাসড়কটি নিরাপদ করা হোক।

Comment using Facebook