কপিলমুনিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন!

0
49

কপিলমুনি (খুলনা) সংবাদদাতা

প্রতিবেশী অসহায় পরিবারের বসতবাড়ির জমি দখল করে পাকা ভবন নির্মাণ করতে মরিয়া আনিছুর রহমান নামে এক মাদ্রাসা শিক্ষক। শুধু তাই নয়, দখল ষড়যন্ত্রে উল্টো মামলাও করেছেন তিনি।

শিক্ষকের এহেন কর্মকান্ডের অভিযোগ ও তার হাত থেকে রেহায় পেতে ভুক্তভোগী পরিবারটি মঙ্গলবার পাইকগাছার কপিলমুনি প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। ঘটনাটি পাইকগাছা উপজেলার হরিঢালী ইউনিয়নের নগরশ্রীরামপুর গ্রামের। মঙ্গলবার দুপুরে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ভুক্তভোগী মশিয়ার রহমান গং পরিবার জানান, তার বসতবাড়ির পার্শ্বেই মৃত অজিয়ার রহমান ফকিরের ছেলে হাবিবনগর ফাজেল মাদ্রাসার শিক্ষক আনিছুর রহমানের বাড়ি।

সম্প্রতি তিনি নতুন ভবন তৈরী করতে পুরাতন ঘর ভেঙে ফেলেন। এবং জমির সীমানা নির্ধারণ ছাড়াই ভুক্তভোগী মশিয়ার গংদের জমির মধ্যে ঢুকে আরসিসি ঢালাইয়ের পাকা ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়ায় বাঁধা প্রদান করে মশিয়ার। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে মশিয়ার সহ ৫ জনের বিরুদ্ধে নির্বাহী আদালতে ১৪৪ ধারায় একটি মামলা রুজু করেন শিক্ষক আনিছ। যার নং ১৫/২২। বিজ্ঞ আদালত স্থিতিবস্থা বজায় রাখতে থানাকে নির্দেশ প্রদান করেন।

এমতাবস্থায় প্রশাসনের ভয় দেখিয়ে দখল প্রক্রিয়া চলমান রাখার পায়তারা করছে মাদ্রাসা শিক্ষক আনিছুর রহমান। এ ব্যপারে স্থানীয় কপিলমুনির পুলিশ ফাঁড়ির এস আই আঃ আলিম বলেন আমি সরে জমিনে উভয় পক্ষকে জমির আমিন নিয়ে মাফজোফ করার কথা বলে আসলেও ঐ শিক্ষক তাতে রাজি হচ্ছেন না।

লিখিত বক্তব্যে ভুক্তভোগী মশিয়ার আরো জানায়, শিক্ষক আনিছুর রহমান প্রথমে জমি দখল করতে গেলে আমি স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বরাবর লিখিত অভিযোগ করি। চেয়ারম্যান সাহেব বিষয়টি মিমাংসার জন্য উভয় পক্ষকে নোটিশ প্রদান করলেও সেখানে হাজির হয়নি শিক্ষক আনিছ।

তিনি বলেন, আমাদের ৩৬ শতক জমিতে দীর্ঘদিন যাবৎ আমরা শান্তিপূর্ণভাবে বসবাস করে আসছি। কোনদিন কোন সমস্যা হয়নি। বর্তমানে বিআরএস রেকর্ড চুড়ান্ত ভাবে প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু আমার রেকর্ডীয় জমির ভিতরে সে অন্যায় ও গায়ের জোরে ঘর নির্মানের পায়তারা করছে। এ ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন মশিয়ার গং পরিবার।

Comment using Facebook