আজ মঙ্গলবার ১৪ই জুলাই, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ সকাল ৭:০৬

add

স্বামী হত্যার বিচার দাবি করায় বাদীকে ভিটে মাটি ছাড়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশিত: মে ৮, ২০২০ সময় : ২২:৫২:০৪

স্বামী হত্যার বিচার দাবি করায় মামলার বাদী লিলিমা বেগমকে ভিটেমাটি ছাড়া করেছে খুনিরা। প্রাণ ভয়ে শিশু কন্যাটির হাত ধরে চোখের জলে বুক ভাসিয়ে স্বামীর ভিটে ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছেন বিধবা লিলিমা বেগম।

 

বিষয়টি থানা পুলিশ হলেও কর্ণপাত করেননি থানার বড় কর্তা। অপরদিকে কৃষক হাশেম আলী হত্যা মামলার আইও চাঁচড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এস আই শাহাজাহান আসামীদের আটকের পরিবর্তে বাদীকে নানা ভাবে ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে।

 

আর এ সবের পেছনে কলকাটি নাড়ছে হাশেম আলী হত্যা মামলার প্রধান আসামী কুখ্যাত খুনি ও সন্ত্রাসীদের গড ফাদার নুর ইসলাম ওরফে নুরু মহুরী। যশোর সদর উপজেলার ভাতুড়িয়া গ্রামের কৃষক হাশেম আলীকে গত ১৫ জানুয়ারি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে পিটিয়ে ও শ্বাস রোধ করে হত্যা করে নুরু গংরা।

 

শুরুতে এই হত্যাকান্ডটিকে স্বাভাবিক মৃত্যু বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে কুনি চক্র। পরে লাশের ময়না তদন্ত রিপোটর্রে ভিত্তিতে নিহতের স্ত্রী লিলিমা বেগম বাদী হয়ে যশোর কোতয়ালী থানায় গত ২০ এপ্রিল ১৮ জনকে অভিযুক্ত করে স্বামী হত্যার মামলা দায়ের করেন।

 

মামলা নম্বর- ৫ধারা- ১৪৩/৪৪৭/৩২৩/৩০৭/৩০২/৪২৭/১১৪/৩৪ বাংলাদেশ পেনাল কোড। মামলাটির তদন্ত ভার দেওয়া হয় চাঁচড়া ফাঁড়ির ইনচার্জকে।

 

মামলার আসামীরা হচ্ছে ভাতুড়িয়া গ্রামের মৃত উসমান আলীর ছেলে নুর ইসলাম ওরফে নুরু মুহুরী,আয়নাল আলীর ছেলে আব্দুল মান্নান,মৃত আকবার আলীর ছেলে মিন্টু, আবুল কাশেমের ছেলে কবিরুজ্জামান ওরফে কাজল,আব্দুস সামাদের ছেলে আতিয়ার ওরফে আতি খোকা,

 

ওয়াজেদ ড্রাইভারের ছেলে আলামিন, মৃত লতিফ গাজীর ছেলে আহসান,নুর ইসলামের ছেলে ইসরাজুল,আব্দুল মান্নানের ছেলে বাপ্পী,মৃত উসমানের ছেলে ইউনুচ,হাশেম আলীর ছেলে রফিকুল,আব্দুস সালামের ছেলে রাজু, মফিজুর রহমান মিস্ত্রির ছেলে সোহেল,

 

রবিউলের ছেলে ইমরান, মৃত ওমর আলীর ছেলে জাহাঙ্গীর, রওশন আলীর ছেলে আব্দুল গফ্ফার ও ইনামুল পিতা অজ্ঞাত। ঘটনার এই পর্যায়েও পুলিশ একজন আসামীকেও আটক করতে পারেনি।

 

পুলিশের দাবি তারা আসামীদের আটকে অভিযান অব্যাহত রেখেছেন। কিন্তু বাদীর দাবি ভিন্ন। তার দাবি হচ্ছে পুলিশ ইচ্ছা করে এই মামলার আসামীদের আটক করছে না। বরং পুলিশ আসামীদের গড ফাদার নুরু মহুরীর সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রেখে বাড়তি ফায়দা লুটছে।

 

যার কারনে আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ালেও পুলিশের চোখে তারা পলাতক। এদিকে শুরু থেকে এই হত্যা মামলা প্রত্যাহার করে নেওয়ার জন্য নুরু মহুরী ও তার ক্যাডাররা বাদী ও তার ছেলে মেয়েকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে।

 

তারই ধারাবাহিকতায় গত ৩ দিন আগে মামলার আসামীদের স্ত্রী সন্তানরা বাদীর বাড়িতে হামলা করে। তারা মামলা প্রত্যাহার করে না নিলে বদী ও তার মেয়েকে রাতে অন্ধকারে ঘরে পুড়িয়ে মারার হুমকি দিতে থাকে এক পর্যায়ে নুরু মহুরীর স্ত্রীসহ অন্য কয়েকজন আসামীর স্ত্রী বাদী লিলিমা ও তার শিশু কন্যাকে মারপিট করলে কৌশলে তারা বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

 

 

ঘটনাটি মিডিয়া কর্মীদের নজরে আসলে তারা বাদীকে এই ঘটনায় থানায় একটি জিডি করার পরামর্শ দেন। বাদী লিখিত অভিযোগ নিয়ে থানায় গেলেও পুলিশ তা রেকর্ড করেনি। উল্টো বাদীকে নানা প্রকারে ভয়ভীতি দেখিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেন।

 

 

জীবনের নিরাপত্তার কথা ভেবে বাদী কোলের শিশু কন্যাটির হাত ধরে অন্যত্র পালিয়ে গেছেন বলে নির্ভরশীল সূত্র জানিয়েছে। সুত্রের দাবি মতে পুলিশ এই হত্রা মামলার আসামীদের আটক করবে না।

 

 

কারন মামলার আইও’র সাথে এই হত্যার প্রধান নায়ক সন্ত্রাসীদের গডফাদার একাধিক হত্যা মামলার মুল নায়ক নুর ইসলাম ওরফে নুরু মহুরীর রয়েছে বিশেষ লেনদেনের সম্পর্ক। তাছাড়া যশোর শহরের শংকরপুর কেন্দ্রীক একটি বড় সিন্ডিকেটের অন্যতম হোতা নুরু মহুরীর ভান্ডারে রয়েছে বৈধ অবৈধ পন্থায় উপর্জিত কোটি কোটি টাকা।

 

 

যা দিয়ে সে খুব সহজে আইনকে কিনে নিতে সিদ্ধ হস্ত। অভিযেগ রয়েছে শংকরপুর কেন্দ্রীয় ওই সিন্ডিকেটের বহু ক্যাডার এখন গুরু গংয়ের বাহিনীর সদস্য। এছাড়া নুরু গং ওই বাহিনীর বিপুল পরিমান অস্ত্র শস্ত্র নিজেদের কব্জায় রাখলেও অদ্যাবধি পুলিশ তা উদ্ধারে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। ফলে বর্তমানে প্রায় শতাধিক ক্যাডারের এই বাহিনীর হাতে বিপুল পরিমান অবৈধ অস্ত্র থাকায় খুন খারাবী তাদের নেশায় পরিণত হয়েছে।

 

এক অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে এই নুরু বাহিনী যশোর শহরের উত্তরাঞ্চল বিশেষ করে চাঁচড়া, বর্মণপাড়া, ভাতুড়িয়া, নারায়রপুর, মাহিদিয়া, সাড়াপোলসহ গোটা এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করেছে। এই বাহিনীর ক্যাডারদের হাতে এই সময়ে প্রায় এক ডজন হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটলেও তার অধিকাংশ রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

 

 

প্রতিটি হত্যাকান্ডে এমন কোৗশল ব্যবহার করে এই বাহিনীর ক্যাডার যা নিয়ে সৃষ্টি হয ধুম্রজা্ল। ঘটনার পর দায় চাপানো হয় অন্যের ওপর। নুরু বাহিনীর ক্যাডাররা থেকে যায় ধরা ছোঁয়ার বাইরে। আর এসবই সংঘটিত হয় বাহিনী প্রধান নুরু মহুরীর নির্দেশনায় বা নেতৃত্বে।

 

 

অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে শংকরপুর কেন্দ্রীয় হাসান বাহিনীর সাবেক এসব ক্যাডাররা লাউজানির ফোর মার্ডার, রেজাউল হত্যাকান্ড, কটা খায়ের হত্যা, মহোর আলী হত্যা, পিডিবির ড্রাইভার মতিয়ার হত্যা, চাঁচড়া ভাতুড়িয়া গ্রামের আলতাফ হত্যা,চাঁচড়ার মাহিদিয়া গ্রামের কাংগাল জলিল হত্যা,

 

 

সতিঘাটার ব্যবসায়ী লাভলু হত্যা, চাঁচড়া এলাকার বিশিষ্ট মৎস্য ব্যবসায়ী কামাল হত্যাসহ প্রায় একডজন হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত নুরু বাহিনীর ক্যাডাররা। এর কোন কোনটিতে নুরু মহুরী সরাসরি নেতৃত্ব দিয়েছে। কোনটিতে রয়েছে তার হুকুম।

 

 

আর প্রতিটি হত্যাকান্ডের ঘটনা ভিন্ন কাতে প্রবাহিত করতে নান কৌশল দেখিয়েছেন বহুরুপি এই খুনি সন্ত্রাসীদের গডফাদার। সব সময় সরকারী দলের ছত্রছায়ায় লালিত পালিত এই নরখাদক দিন দিন বেপরোয়া হয়ে উঠছে।

 

 

মাছের ঘের দখল, অন্যের সম্পত্তি দখল থেকে শুরু করে বৈধ অবৈধ পন্থায় এই নুরু মহুরী ইতিমধ্যে ভাতুড়িয়া এলাকার ধনকুবের বনে গেছেন। তার অর্থ বিত্তের কাছে সবাই নতি স্বীকার করায় সেই এখন এই অঞ্চলের দন্ডমুন্ডের কর্তা বনে গেছে।

 

 

যার কারনে স্বামী হত্যা বিচার প্রার্থনা করায় মামলার বাদীকে ভিটেমাটি ছাড়া করেছে তার ক্যাডাররা। বাদীর আশংকা যে কোন সময় এই খুনিরা তার ছেলে, মেয়ে ও তাকে হত্যা করতে পারে।

 

 

তাই তিনি অবিলম্বে খুনিদের আটক ও বিচারের জন্য পুলিশ প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। একই সাথে তিনি এই হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচনসহ প্রকৃত তদন্ত ও খুনিদের আটকের জন্য মামলাটি দ্রুত ডিবি পুলিশ বা পিবিআইকে দিয়ে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন।

ফকিরহাটে ৫দিনের ব্যাবধানে আবারও ৫ দোকানে চুরি!
দাকোপে কালবৈশাখীর ছোবলে বহু ঘরবাড়ী ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বিধ্বস্ত
সাহেদের নামে গ্রেফতারি পরোয়ানা
শার্শায় অনলাইনে ক্লাস শুরু অভিভাবকদের স্বস্তি : গোপনে চলছে প্রাইভেট টিউশনি
এরশাদের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
যশোর শহরের ৯ ওয়ার্ডে এমপি নাবিলের পক্ষে গাছের চারা বিতরণ
মহেশপুরে প্রধানমন্ত্রী ও এমপি চঞ্চলের তহবিলের চেক বিতরণ
যশোর-৬ আসনে উপ-নির্বাচন আজ
চীনে ভয়াবহ বন্যা : বাঁধের ওপর রাত কাটাচ্ছে লাখো মানুষ
এবারের কোরবানির ঈদে আলোচিত নাম ঝিনাইদহের সেই যুবরাজ
মৃত্যুর ১৭ বছর পরও দর্শকের ভালোবাসায় সিক্ত দিলদার
যে কারণে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক
সীমান্তে হুমকি : আরো ৭২ হাজার সিগ-৭১৬ রাইফেল কিনছে ভারত
এইচপি স্কোয়াডের ক্যাম্পের জন্য ২৬ জনের দল
করোনাভাইরাস: বিশ্বজুড়ে একদিনে রেকর্ড রোগী শনাক্ত
এই দুর্যোগে যার যার সুরক্ষা তারই হাতে- সিটি মেয়র
বাসের ভেতর নারীকে ধর্ষণচেষ্টা : চালকসহ গ্রেফতার ৩
ফুলতলার নবাগত নির্বাহী কর্মকর্তা সাদিয়া আফরিনের সাথে মতবিনিময়
গডফাদাররা কেন ধরা-ছোঁয়ার বাইরে-রিজভী
ঝিনাইদহে বিপুল পরিমান নকল প্রসাধনী জব্দ : ২ জনের কারাদন্ড
দৈনিক নওয়াপাড়ায় সংবাদ প্রকাশ অসহায় ফুলবানুর পাশে চৌগাছা ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ
৩ দিনের রিমান্ডে ডা. সাবরিনা
‘গোয়াল ঘর আপনার গরু আমাদের’ লিখে গরু চুরি : গণপিটুনিতে নিহত তিন : আটক এক
যশোরের ৬টির মধ্যে ৪টিতে আসছেন বর্তমান এমপি
অভিযোগ বাক্স ঝুঁলিয়েছেন এমপি তন্ময় : আতংকে মাদক সিন্ডিকেট
করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির লক্ষে বিশেষ দোয়া ও লিফলেট বিতরণ করলেন- নওয়াপাড়ার গদ্দীনশীন পীর
সিপাই থেকে ওসি হয়ে শতকোটি টাকার পাহাড়! দুদকে অভিযোগ
কোথাও ঠাঁই নেই : কবরস্থানে মা- ছেলের বসবাস
অভয়নগরে চিকিৎসকের স্ত্রীর আত্মহত্যা
নওয়াপাড়ার ধোপাদী গ্রামে ৩ ইভটিজারকে গণধোলাই
যশোরের নতুন পুলিশ সুপার হলেন আশরাফ হোসেন
লোহাগড়া হাসপাতাল থেকে ডেঙ্গু রোগীকে বের করে দিয়েছেন সেবিকা কল্পনা ও সাধনা!
বাঘারপাড়ায় ধর্ষণের পর হত্যা করে জয়নবের লাশ ঘেরে ফেলেছে হাফেজ মুজিবুল
নিষিদ্ধ ঘোষিত এনার্জি ড্রিংক্স
যশোর শিক্ষাবোর্ডের সাড়ে ২৯ লাখ টাকা অপচয় বন্ধ করে দিলেন ড. মোল্লা আমীর হোসেন
রাজগঞ্জে কাজীকে ৬ মাসের জেল, মেয়ের পিতা চাচা ও স্বামীকে জরিমানা
কিস্তি দিতে না পারায় ধান ও পালিত শুকর নিয়ে গেছে সমিতির লোকেরা!
নওয়াপাড়ায় মাছ বাজারে ১ কেজি বাটখারার ওজন ৮শ’ গ্রাম :
ফুলতলায় র‌্যাবের অভিযানে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ অভয়নগরের ৩ জন আটক
পথ দেখালো মডেল স্কুল :অনুসরণ করলো আল হেলাল: নওয়াপাড়ায় গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আবারও সংঘর্ষ : নদী সাঁতরে প্রাণ রক্ষার চেষ্টা
অভয়নগরে এই প্রথম করোনা রোগী শণাক্ত
 চোখের জল ফেলবেন নওয়াপাড়া শংকরপাশা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী সরোয়ার!

ই-পত্রিকা-কাগজে যেমন অনলাইনে তেমন

ePaper

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
প্রয়োজনীয় নাম্বার

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা : ০১৭১৭৮১৩৩৪৪

নওয়াপাড়া রেলওয়ে মাষ্টার : ০১৭১৮৫৮১০৯৪

হাইওয়ে থানা ওসি : ০১৭৬৯৬৯০৪৫৯

UNO অভয়নগর : ০১৭৩৩০৭৪০৩৫

অভয়নগর থানা : ০১৭১৩ ৩৭৪১৬৭

ফায়ার সার্ভিস : ০১৭৩২ ৫৫০৪৬০

জাতীয় জরুরী সেবা : ৯৯৯

দুর্ভোগ ও পরিবেশ এর আরও খবর

//