আজ মঙ্গলবার ২রা জুন, ২০২০ ইং দুপুর ১:১১

add

সারাদেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও আবাসিক হলে সাঁড়াশি অভিযানের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস
প্রকাশিত: অক্টোবর ১০, ২০১৯ সময় : ০০:০৫:৪২

ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য দেশের কোনও স্বার্থ বিক্রি করবেন না বলে আশ^স্ত করেছেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য দেশের কোনও স্বার্থ শেখ হাসিনা বিক্রি করতে পারেন না। গ্যাস বিক্রি করতে চাইনি বলে ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসতে পারিনি। কিন্তু বিএনপি গ্যাস বিক্রির চুক্তি করার পরই ক্ষমতায় আসে ওই সময়। গতকাল বুধবার বিকেলে গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ আশ্বাস দেন। নিউইয়র্ক ও ভারত সফর নিয়ে বিভিন্ন সফলতা এবং অভিজ্ঞতা জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। তিস্তার পানিবণ্টনে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আশ্বস্ত করেছেন উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আলোচনার মাধ্যমে পানি সমস্যার সমাধান করা হবে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী ফেনী নদীর পানিবণ্টনের চুক্তি প্রসঙ্গে বলেন, ‘ত্রিপুরায় যে পানি দেয়া হচ্ছে, তা হচ্ছে খাবার পানি। কেউ খাবার পানি চাইলে, তা যদি না দিই, তাহলে কেমন হয়!’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ত্রিপুরা আমাদের ঐতিহাসিক বন্ধু। মুক্তিযুদ্ধে ত্রিপুরার মানুষ আমাদের আগলে রেখেছে। মুক্তিযুদ্ধে সহায়তা করেছে। সেই ত্রিপুরায় সামান্য খাবার পানি দেয়ার জন্য আপত্তি থাকতে পারে না। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িতদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা হবে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, হত্যার ঘটনা শুনে সঙ্গে সঙ্গে ছাত্রলীগকে ডেকে তাদের সবগুলোকে বহিষ্কার করতে বলেছি।

পুলিশকে বলেছি তাদের গ্রেফতার করতে। কাউকে ছাড় দেব না। অন্যায়কারীর বিচার হবেই। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বুয়েটের এ ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে পুলিশকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়। এ ঘটনার আলামত ও সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করতে বলি। কিন্তু পুলিশ যখন সিসিটিভি ফুটেজ আনতে গেল তখন অনেকে বাধা দিল। আইজিপি আমাকে জানালো ফুটেজ আনতে দিচ্ছে না। তাদের আটকে রেখে দিয়েছিল। এ কাজে বাধা দিল কেন? পরে পুলিশ তিন ঘণ্টা পর ফুটেজ এনেছে। একটা কপি তাদেরকেও দিয়েছে। তিনি বলেন, সিসিটিভি ফুটেজ দেখে যাদের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। কে ছাত্রলীগ, কে ছাত্রদল এটা আমি বিবেচনা করব না। আমি বিবেচনা করব অন্যায়ভাবে একটা ছেলেকে মারা হয়েছে। তাকে ২১ বছর বয়সে হত্যা করা হয়েছে। এটা অমানবিক। ২০০১ সালে আমাদের অনেক নেতাকর্মীদের মেরেছে। তাদের হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে মারা হতো। তাদের বাইরে তেমন আঘাত দেখা যেত না, কিন্তু শরীরের ভেতরে জখম হতো, তারা মারা যেত। শেখ হাসিনা বলেন, যারা এ ধরনের ঘটনায় জড়িত, তাদেরকে মেনে নেব না। আমরা কারো নাম জানার অপেক্ষা করি নাই। তার আগেই আমি নির্দেশ দিয়েছি। গ্রেফতার শুরু হয়ে গেছে। তিনি বলেন, যে মা-বাবা সন্তান হারিয়েছে তার কষ্টটা কী? আমি তো নিজে বাপ-মা-ভাই-বোন হারিয়েছি, আমি তা বুঝি। সাধারণ পরিবারের একটি ছেলে। তাকে ধরে নিয়ে গিয়ে এভাবে মারা এ নৃশংসতা কেন? এ জঘন্য কাজ কেন? এদের বিরুদ্ধে আমরা ব্যবস্থা নিচ্ছি। এবং যত ধরনের উচ্চ শাস্তি দেয়া যায় তা দেয়া হবে। কারণ আমি বিচার পাইনি। আমার মা-বাবাকে হত্যা করা হয়েছে।

আমি ৩৮ বছরেও বিচার পাইনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ইতিহাসে অনেক হত্যা হয়েছে। টেন্ডারবাজি করতে গিয়ে দুপক্ষের গুলিতে সানিকে হত্যা করা হয়েছে। ওই বুয়েটে আমাদের অনেক নেতাকর্মীকে হত্যা করা হয়েছে। কেউ তাদের গ্রেফতার করেননি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতিদিন বোমা, গুলি হতো, অস্ত্রের ঝনঝনানি ছিল। আমাদের অনেক শিক্ষক বন্ধু-বান্ধব ছিল তারা বলতো- এখন বোমা-গুলি অভ্যাসে পরিণত হয়েছিল। আমরা ক্ষমতায় এসে এটি বন্ধ করেছি। শিক্ষার পরিবেশ ফিরিয়ে দিয়েছি। শেখ হাসিনা বলেন, ছাত্ররাই সব আন্দোলনে অগ্রণী ভূমিকায় থাকে। আমিও ছাত্ররাজনীতি করেই এখানে এসেছি। এখন একটা ঘটনা ঘটেছে বলেই ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে কেন? তবে কোনো প্রতিষ্ঠান চাইলে নিজেরা সেটি করতে পারে। এসময় সাংবাদিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারা বের করে দেন, কোথায় কোথায় অনিয়ম হচ্ছে। আমি কোনো দলটল বুঝি না। শেখ হাসিনা বলেন, এসব তো রাজনীতি না। এই যে ছেলেটাকে হত্যা করা হলো, এর মধ্যে রাজনৈতিক কোথায়? রাজনীতি ছিল জিয়াউর রহমান যখন আমাদের শওকত, অলিউল্লাহকে হত্যা করলেন। তাদেরকে রাজনৈতিকভাবে হত্যা করেছে। তারা সংগঠন করতে দেবে না, বসুনিয়াকে রাজনৈতিকভাবেই হত্যা করেছে। চুন্নুকে হত্যা করা হয় খালেদা জিয়ার নির্দেশে, জহুরুল হক হলের ভিপি ছিল সে, ৭ মার্চের ভাষণ বাজানো, এটাই ছিল তার অপরাধ। একটা মাত্র গুলিতে শেষ হয়ে যায় সে, এগুলো ছিল রাজনৈতিক হত্যাকা-।

আবরার হত্যায় রাজনীতি কোথায় সেটা খুঁজে বের করতে হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সেই সাথে আমি আমাদের আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী সংস্থাকে বলব, যখন এই ধরনের ঘটনা একটা জায়গায় ঘটেছে, যখন দেখা গেছে এক রুম নিয়ে বসে জমিদারি চাল চালানো, প্রত্যেকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রতিটি হল সব জায়গায় সার্চ করা দরকার। কোথায় কী আছে না আছে, খুঁজে বের করা। কারা মাস্তানি করে বেড়ায়, কারা এই ধরণের ঘটনা ঘটায় সেটা দেখা। সামান্য ১০টাকা ২০ টাকা বা ৩০ টাকা সিট ভাড়ায় এক একজন রুমে থাকবে। তারপর সেখানে বসে এই ধরণের মাস্তানি করবে, সমস্ত খরচ বহন করতে হবে জনগণের ট্যাক্সের পয়সা দিয়ে, এটা কখন গ্রহণযোগ্য নয়। ক্যাসিনো প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যারা এখন ক্যাসিনো খেলায় অভ্যস্ত হয়ে গেছে বা এ ধরনের জুয়া খেলায় অভ্যস্ত, কেউ হয়তো দেশ ছেড়ে পালিয়েছে, কেউ হয়তো নানা ফন্দি আঁটছে তাদের বলছি, একটা দ্বীপ খুঁজে বের করেন, সেই দ্বীপে আমরা সব ব্যবস্থা করে দেব। ভাসানচর বিশাল দ্বীপ। এক পাশে রোহিঙ্গা আরেক পাশে আপনাদের ব্যবস্থা করে দেব। সবাই ওখানে চলে যান। সংবাদ সম্মেলনে চলমান ক্যাসিনো অভিযান প্রসঙ্গে জনৈক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে হাসোজ্জ্বলে এ কথা বলেন শেখ হাসিনা। নিউইয়র্ক ও ভারত সফর নিয়ে বিভিন্ন সফলতা এবং অভিজ্ঞতা জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

কোটচাঁদপুরে  উপজেলা নির্বাচনে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন
পানি অপচয় না করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর
অভয়নগরে পূর্বের বিরোধকে কেন্দ্র করে ২ গ্রুপের সংঘর্ষ: আহত ১৬
সেরা পাঁচেও নেই রোনালদো
ফুলতলা প্রেস ক্লাবের মাধ্যমে করোনা সুরক্ষা সামগ্রী প্রদান
যশোরে জিয়াউর রহমান ও তরিকুল ইসলামের আত্মার মাগফেরাত কামনা
করোনার ছুটি শেষে নিরাপদে থাকতে করণীয়
গুডউইল অ্যাম্বাসেডর হলে তামিম
মোহাম্মদ নাসিমের করোনা পজিটিভ
এসএসসি পরীক্ষায় এমসিএসকে’র সাফল্য অব্যাহত
ঘুড়ি উড়াতে গিয়ে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ঠে শিশুর মৃত্যু
আরও দুই সপ্তাহ ছুটি বাড়ানোর আহ্বান বিশেষজ্ঞদের
ঝিনাইদহে করোনার প্রভাবে বিপাকে গো খামারীরা : সরকারি সহায়তার দাবি
খুলনায় সোনালী ব্যাংকের গোডাউন কিপারের জামিন নামঞ্জুর
মোড়েলগঞ্জে বাবুর্চির নাম ইমামের তালিকায়!
মণিরামপুরে কৃষক নজরুল হত্যার ঘটনায় স্ত্রীর মামলা
মণিরামপুরে মাদক কারবারী নিহতের ঘটনায় র‌্যাবের পৃথক ৩ মামলা
চুকনগরের মার্কেট গুলোতে নির্দেশনা অমান্য করে উপচে পড়া ভিড়
খুলনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচলের দাবি : ভাড়া বৃদ্ধিতে ক্ষুব্ধ যাত্রীসাধারণ
সরকারের ‘একলা চলো নীতি’ পুরোপুরিভাবে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত- মির্জা ফখরুল
করোনায় আক্রান্ত হবেন ৬৫ কোটি ভারতীয়
ইরানে ‘ভালোবাসার অপরাধে’ মেয়ের শির‘চ্ছেদ করলেন বাবা
‘গোয়াল ঘর আপনার গরু আমাদের’ লিখে গরু চুরি : গণপিটুনিতে নিহত তিন : আটক এক
যশোরের ৬টির মধ্যে ৪টিতে আসছেন বর্তমান এমপি
অভিযোগ বাক্স ঝুঁলিয়েছেন এমপি তন্ময় : আতংকে মাদক সিন্ডিকেট
করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির লক্ষে বিশেষ দোয়া ও লিফলেট বিতরণ করলেন- নওয়াপাড়ার গদ্দীনশীন পীর
সিপাই থেকে ওসি হয়ে শতকোটি টাকার পাহাড়! দুদকে অভিযোগ
কোথাও ঠাঁই নেই : কবরস্থানে মা- ছেলের বসবাস
নওয়াপাড়ার ধোপাদী গ্রামে ৩ ইভটিজারকে গণধোলাই
যশোরের নতুন পুলিশ সুপার হলেন আশরাফ হোসেন
লোহাগড়া হাসপাতাল থেকে ডেঙ্গু রোগীকে বের করে দিয়েছেন সেবিকা কল্পনা ও সাধনা!
বাঘারপাড়ায় ধর্ষণের পর হত্যা করে জয়নবের লাশ ঘেরে ফেলেছে হাফেজ মুজিবুল
নিষিদ্ধ ঘোষিত এনার্জি ড্রিংক্স
যশোর শিক্ষাবোর্ডের সাড়ে ২৯ লাখ টাকা অপচয় বন্ধ করে দিলেন ড. মোল্লা আমীর হোসেন
রাজগঞ্জে কাজীকে ৬ মাসের জেল, মেয়ের পিতা চাচা ও স্বামীকে জরিমানা
নওয়াপাড়ায় মাছ বাজারে ১ কেজি বাটখারার ওজন ৮শ’ গ্রাম :
পথ দেখালো মডেল স্কুল :অনুসরণ করলো আল হেলাল: নওয়াপাড়ায় গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আবারও সংঘর্ষ : নদী সাঁতরে প্রাণ রক্ষার চেষ্টা
 চোখের জল ফেলবেন নওয়াপাড়া শংকরপাশা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী সরোয়ার!
অভয়নগরে এই প্রথম করোনা রোগী শণাক্ত
নওয়াপাড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় প্যানেল মেয়র রবিন অধিকারী ব্যাচাসহ ৪ জন আহত
এমপি কাজী নাবিল আহমেদের হাতের ছোঁয়ায় চাঁচড়া ইউনিয়নে ব্যাপক উন্নয়ন
গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী গরুর গাড়ি ও গাড়িয়াল পেশা বিলুপ্তপ্রায়

ই-পত্রিকা-কাগজে যেমন অনলাইনে তেমন

ePaper

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০  
প্রয়োজনীয় নাম্বার

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা : ০১৭১৭৮১৩৩৪৪

নওয়াপাড়া রেলওয়ে মাষ্টার : ০১৭১৮৫৮১০৯৪

হাইওয়ে থানা ওসি : ০১৭৬৯৬৯০৪৫৯

UNO অভয়নগর : ০১৭৩৩০৭৪০৩৫

অভয়নগর থানা : ০১৭১৩ ৩৭৪১৬৭

ফায়ার সার্ভিস : ০১৭৩২ ৫৫০৪৬০

জাতীয় জরুরী সেবা : ৯৯৯

রাজনীতি এর আরও খবর

//