আজ শনিবার ৪ঠা জুলাই, ২০২০ ইং রাত ৪:৪৮

add

খুলনা-বাগেরহাট ও সাতক্ষীরা অঞ্চলের মজুদ কাঁকড়া ও কুঁচিয়া মারা যাচ্ছে

নওয়াপাড়া ডেস্ক/ পাইকগাছা সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০ সময় : ০০:১৪:২০

কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার প্রধান ক্রেতা চীন : করোনা ভাইরাসের প্রভাবে ২০ দিন রপ্তানী বন্ধ  : কোটি কোটি টাকা লোকসানের পড়তে যাচ্ছে চাষীরা।

 

দক্ষিণাঞ্চলের উপকূলীয় এলাকার অর্থনীতির প্রধান ভিত্তি চিংড়ি, কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার চাষ। চিংড়ির পরই কাঁকড়া আর কুঁচিয়ার অবস্থান। হাজার হাজার কোটি টাকার ব্যবসা কাঁকড়া আর কুঁচিয়ার চাষ। কাঁকড়া আর কুঁচিয়া রপ্তানী করে বিপুল অংকের বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের মাধ্যমে আইলা বিধ্বস্ত এ অঞ্চলের ভঙ্গুর অর্থনীতিকে ঘুরে দাড়ানোর নিরলস প্রচেষ্টায় যখন এ অঞ্চলের কাঁকড়া ও কুঁচিয়া চাষীরা নিরন্তর সংগ্রামে লিপ্ত। ঠিক তখনই চীনে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে এ ব্যবসা মুখ থুবড়ে পড়ার উপক্রম হয়েছে।

 

এ অঞ্চলের মোট উৎপাদিত কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার ৯০ ভাগ রপ্তানী হতো চীন দেশে। আর বাকি ১০ ভাগ হংকংসহ বিভিন্ন দেশে। গত ২০ দিন চীনে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া রপ্তানী বন্ধ হওয়ায় কাঁকড়া আর কুঁচিয়া সংরক্ষণ ও মজুদ করতে হিমসীম খাচ্ছে তারা। সেই সাথে দেদারছে মারা যাচ্ছে মূল্যবান কাঁকড়া ও কুঁচিয়া। ফলে কোটি কোটি টাকার লোকসান ও ক্ষতির আশংকা করেছে এ অঞ্চলের কাঁকড়া ও কুঁচিয়া চাষীরা। সেই সাথে বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে ও স্থানীয় সমিতি ও এনজিও থেকে দাদন নিয়ে ব্যবসায় নামা এ অঞ্চলের হাজার হাজার চাষী পথে নামার উপক্রম হয়েছে।

 

 

খুলনা বিভাগের বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ, রামপাল, সাতক্ষীরার শ্যামনগর, মুন্সীগঞ্জ ও খুলনার পাইকগাছা, কয়রা অঞ্চলে সর্বাধিক কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার চাষ হয়ে থাকে। সূত্রের দেয়া তথ্য মতে, এ অঞ্চলে প্রায় ৫ হাজার হেক্টর জমিতে শুধুমাত্র কাঁকড়া ও ৫০ হাজার হেক্টরেরও অধিক জমির মিশ্র ঘের থেকে কাঁকড়া উৎপাদিত হয়। এছাড়া অঞ্চল থেকে প্রতিদিন কয়েকটন কুঁচিয়া রপ্তানী করা হতো। এদিকে কাঁকড়া ও কুঁচিয়ার ব্যবসায় ধস নামায় এর প্রভাব পড়েছে অন্যান্য ব্যবসায়। ফলে বিপুল পরিমাণ টাকা আর্থিক ক্ষতির আশংকা করছেন এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট হাজার হাজার মানুষ।

 

 

বর্তমানে কাঁকড়া ও কুঁচিয়া নিয়ে মহা বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় ক্ষুদ্র ও সরবরাহকারী ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন মৎস্য দপ্তর। কাঁকড়া রপ্তানির বিকল্প বাজার খুঁজতে হবে তবে চীন অতি সম্প্রতি আশ্বস্ত করায় পরিস্থিতি দ্রুত স্বাভাবিক হতে পারে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্ট মৎস্য দপ্তরের কর্মকর্তারা। পাইকগাছা উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস জানান, অত্র উপজেলায় ২শ হেক্টরে শুধুমাত্র কাঁকড়া এবং ১৭ হাজার হেক্টর মিশ্র ঘের থেকে কাঁকড়া উৎপাদন হয়ে থাকে।

 

 

অনুরূপভাবে এসব উৎস থেকে কুচিয়াও উৎপাদন হয়। উপজেলা মৎস্য দপ্তরের সূত্রমতে, অত্র এলাকা থেকে গত বছর ৪ হাজার ১শ মেট্রিক টন কাঁকড়া ও ৩শ মেট্রিক টন কুচিয়া উৎপাদন হয়। উৎপাদিত কাঁকড়া ও কুচিয়া চীন, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া ও হংকং সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে রপ্তানি হয়ে থাকে। যার মধ্যে ৯০ ভাগ কাঁকড়া শুধুমাত্র চীনেই রপ্তানি হয়।

 

মাস খানেক আগে চীনে করোনা ভাইরাস দেখা দেওয়ায় গত ২৫ জানুয়ারী থেকে বাংলাদেশ থেকে চীনে কাঁকড়া ও কুচিয়া রপ্তানি বন্ধ হয়ে যায়। ফলে বিপাকে পড়েন অত্র এলাকার সরবরাহকারী, ব্যবসায়ী, খুচরা বিক্রেতা ও উৎপাদনকারী চাষীরা। ২০ দিন রপ্তানি বন্ধ থাকায় ধস নেমেছে কাঁকড়া ও কুচিয়া ব্যবসায়। অধিকাংশ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে অলস সময় পার করছে ব্যবসায়ীরা। কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান চালু রাখলেও সরবরাহ ও কেনা-বেচা নেই বললেই চলে। দামও নেমে এসেছে কয়েকগুণ।

 

 

মূলত ৪টি গ্রেডে স্ত্রী কাঁকড়া এবং ৫টি গ্রেডে পুরুষ কাঁকড়া বিক্রি হয়ে থাকে। গ্রেড অনুযায়ী দামও কমবেশি হয়ে থাকে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকাকালীন সময়ে ২১০ গ্রামের ডবল এফ-১ স্ত্রী কাঁকড়ার কেজি প্রতি মূল্য ছিল ১৬শ থেকে ২ হাজার। যা নেমে এসেছে ৫শ টাকায়। ৫শ গ্রাম ওজনের ডবল এক্স এল পুরুষ কাঁকড়ার কেজি প্রতি মূল্য ছিল ১১-১২শ টাকা। যা বর্তমানে চলছে ৫শ টাকা। অপরদিকে যে সব ব্যবসায়ী ও হ্যাচারী মালিকরা কাঁকড়া ও কুচিয়া মজুদ করে রেখে ছিলেন দীর্ঘদিন মজুদ করে রাখায় মরতে শুরু করেছে কাঁকড়া ও কুচিয়া।

 

 

এ উপজেলার কাকা-ভাইপো ডিপোর স্বদেব বাছাড় জানান, আগে প্রতিদিন ১শ কেজি কাঁকড়া কেনা হতো। যেখানে এখন ৫ কেজি কেনা হচ্ছে। নানা-নাতি এন্টারপ্রাইজে বেলাল হোসেন সরদার জানান, এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে ব্যবসা করছিলাম। ব্যবসা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় এনজিও কর্মীরা প্রতিনিয়ত ঋণের কিস্তির জন্য চাঁপ দিচ্ছে। প্রিয়াংকা ডিপো মালিক বকুল কুমার মন্ডল জানান, প্রতিদিন নূন্যতম ১টন কুচিয়া রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানে সরবরাহ করা হতো। গত ২০ দিন ড্রামে যে সব কুচিয়া মজুদ করে রেখে ছিলাম ধীরে ধীরে তা মারা যাচ্ছে।

 

 

দিনবন্ধু মন্ডল জানান, কাঁকড়া ও কুচিয়ার জন্য এই মৌসুমটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। সারাবছর যে ব্যবসা হয় তার চেয়েও অনেক বেশি ব্যবসা হয় এই মৌসুমে। পাইকগাছা কাঁকড়া ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি দেবব্রত দাশ জানান, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে কমপক্ষে ৫শ ডিপো রয়েছে। গত ২৫ জানুয়ারী থেকে করোনা ভাইরাসের কারণে চীনে রপ্তানি বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বেশিরভাগ ডিপো বন্ধ হয়ে গেছে। অনেক কর্মচারীকে ছুটি দেওয়া হয়েছে।

 

 

চীনের ব্যাংক গুলোতে বর্ষবরণের ছুটি থাকায় কোটি কোটি টাকা চীনে আটকা পড়েছে। যার ফলে আমরা যারা সরবরাহকারী ব্যবসায়ী রয়েছি আমাদের লক্ষ লক্ষ টাকা আটকা পড়েছে। অপরদিকে মজুদ করা কাঁকড়া ও কুচিয়া মারা যাচ্ছে। এ ধরণের নানা সমস্যার সম্মুক্ষীন কাঁকড়া ও কুচিয়া ব্যবসায়ীরা। এমন পরিস্থিতি দীর্ঘ স্থায়ী হলে কোটি কোটি টাকা লোকসান ও ক্ষতির সম্মুক্ষীন হতে হবে আমাদের। আমরা চাই সরকার চীন সরকারের সাথে কথা বলে দ্রুত রপ্তানির ব্যবস্থা করুক।

 

 

পাশাপাশি বিশ্বের অন্যান্য দেশে নতুন বাজার সৃষ্টির জন্য ব্যবস্থা করতে হবে। এ প্রসঙ্গে পাইকগাছার সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা পবিত্র কুমার দাস জানান, এমন পরিস্থিতি প্রসঙ্গে সরকারের থেকে আমরা এখনো কোন নির্দেশনা পাইনি। এটা মূলত বাণিজ্য মন্ত্রাণালয়ের কাজ। তবে আমরা বসে নেই। বিষয়টি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষন করছি। শুনেছি চীন সরকার আশ্বস্ত করেছে। আশা করছি দ্রুত আবারও রপ্তানি শুরু হবে এবং তাহলে পরিস্থিতি ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হয়ে আসবে।

বাঘারপাড়ায় সরকারি চাল সংগ্রহে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ!
ফুলে রাঙা আর বাসন্তী মোহে মুগ্ধ হোক নির্মল ভালোবাসা
দুই স্কুলের আবারও সভাপতি হলেন ইমদাদুল হক ইমু
করোনা আতংকের মাঝেও বেপরোয়া বেনাপোল ও সাতক্ষীরা সীমান্তের সোনা পাচারকারীরা
ত্রাণ বিতরণের পাশাপাশি নৌবাহিনীর বৃক্ষরোপন অভিযান অব্যাহত
চিকিৎসাবিজ্ঞানের উন্নয়নে টাস্কফোর্স গঠন করতে হবে – আ স ম রব
সুস্থ হয়েছেন আফ্রিদি!
সাঙ্গাকারাকে ১০ ঘণ্টা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ
দৈনিক নওয়াপাড়ার প্রতিনিধি আশাশুনি প্রেসকাবের সদস্য মুকুল’র পিতার জানাযা সম্পন্ন
শার্শায় ইঞ্জিন চালিত ভ্যানের ধাক্কায় শিশু মৃত্যু
খুলনায় করোনা ও উপসর্গে আরও তিনজনের মৃত্যু : নতুন শনাক্ত ৯৩
বেনাপোল সীমান্তে বিএসএফ’র গুলিতে বাংলাদেশী মাদক ব্যবসায়ী নিহত
ঝিনাইদহে নসিমন উল্টে চালক নিহত
চৌগাছায় বিদ্যুৎ স্পর্শে এক ব্যক্তির মৃত্যু
ইতালি- ফ্রান্সের পর এবার ব্রাজিলেও পানিতে করোনাভাইরাস!
সুন্দরবনের বিষ দস্যুদের বিরুদ্ধে পুলিশের বিশেষ অভিযান শুরু
আগস্টেই বাজারে আসতে পারে ভারতের ভ্যাকসিন!
করোনায় মুক্তিযোদ্ধা খুরশিদ আলমের মৃত্যু
গরু দেখতে প্রতিদিন শত শত নারী-পুরুষের ভীড় : খবর জানে না প্রাণী সম্পদ অফিস
সাহারা খাতুনকে থাইল্যান্ডে নেওয়া হচ্ছে সোমবার
ঢামেকের সিটি স্ক্যান বিভাগে রোগী নেই কেন? প্রশ্ন জাফরুল্লাহর
প্রধানমন্ত্রীকে যখন আমি পাটকলের বিষয়ে জানাই তখন মনে হলো উনি কাঁদছেন- মন্নুজান সুফিয়ান
‘গোয়াল ঘর আপনার গরু আমাদের’ লিখে গরু চুরি : গণপিটুনিতে নিহত তিন : আটক এক
যশোরের ৬টির মধ্যে ৪টিতে আসছেন বর্তমান এমপি
অভিযোগ বাক্স ঝুঁলিয়েছেন এমপি তন্ময় : আতংকে মাদক সিন্ডিকেট
করোনা ভাইরাস থেকে মুক্তির লক্ষে বিশেষ দোয়া ও লিফলেট বিতরণ করলেন- নওয়াপাড়ার গদ্দীনশীন পীর
সিপাই থেকে ওসি হয়ে শতকোটি টাকার পাহাড়! দুদকে অভিযোগ
কোথাও ঠাঁই নেই : কবরস্থানে মা- ছেলের বসবাস
অভয়নগরে চিকিৎসকের স্ত্রীর আত্মহত্যা
নওয়াপাড়ার ধোপাদী গ্রামে ৩ ইভটিজারকে গণধোলাই
যশোরের নতুন পুলিশ সুপার হলেন আশরাফ হোসেন
লোহাগড়া হাসপাতাল থেকে ডেঙ্গু রোগীকে বের করে দিয়েছেন সেবিকা কল্পনা ও সাধনা!
বাঘারপাড়ায় ধর্ষণের পর হত্যা করে জয়নবের লাশ ঘেরে ফেলেছে হাফেজ মুজিবুল
নিষিদ্ধ ঘোষিত এনার্জি ড্রিংক্স
যশোর শিক্ষাবোর্ডের সাড়ে ২৯ লাখ টাকা অপচয় বন্ধ করে দিলেন ড. মোল্লা আমীর হোসেন
রাজগঞ্জে কাজীকে ৬ মাসের জেল, মেয়ের পিতা চাচা ও স্বামীকে জরিমানা
কিস্তি দিতে না পারায় ধান ও পালিত শুকর নিয়ে গেছে সমিতির লোকেরা!
নওয়াপাড়ায় মাছ বাজারে ১ কেজি বাটখারার ওজন ৮শ’ গ্রাম :
ফুলতলায় র‌্যাবের অভিযানে অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ অভয়নগরের ৩ জন আটক
পথ দেখালো মডেল স্কুল :অনুসরণ করলো আল হেলাল: নওয়াপাড়ায় গ্রীষ্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় আবারও সংঘর্ষ : নদী সাঁতরে প্রাণ রক্ষার চেষ্টা
অভয়নগরে এই প্রথম করোনা রোগী শণাক্ত
 চোখের জল ফেলবেন নওয়াপাড়া শংকরপাশা সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অফিস সহকারী সরোয়ার!

ই-পত্রিকা-কাগজে যেমন অনলাইনে তেমন

ePaper

আর্কাইভ

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২
১৩১৪১৫১৬১৭১৮১৯
২০২১২২২৩২৪২৫২৬
২৭২৮২৯৩০৩১  
প্রয়োজনীয় নাম্বার

অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা : ০১৭১৭৮১৩৩৪৪

নওয়াপাড়া রেলওয়ে মাষ্টার : ০১৭১৮৫৮১০৯৪

হাইওয়ে থানা ওসি : ০১৭৬৯৬৯০৪৫৯

UNO অভয়নগর : ০১৭৩৩০৭৪০৩৫

অভয়নগর থানা : ০১৭১৩ ৩৭৪১৬৭

ফায়ার সার্ভিস : ০১৭৩২ ৫৫০৪৬০

জাতীয় জরুরী সেবা : ৯৯৯

দেশের খবর এর আরও খবর

//